‘বয়স্কদের উপর শক্তিশালী এন্টিবডি তৈরি করছে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন’

‘বয়স্কদের উপর শক্তিশালী এন্টিবডি তৈরি করছে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন’
ভ্যাকসিনের প্রতিকী ছবি। ছবি: সংগৃহীত

মরণঘাতী করোনা ভাইরাসের মহামারি শুরু পর থেকেই সঙ্কটে বয়স্ক মানুষেরা। ভাইরাসটির তাদের ওপর সবচেয়ে বেশি ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। এখন পর্যন্ত এর বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হলেও বেশ কয়েকটি গবেষণা কার্যকর প্রমাণের দ্বারপ্রান্তে। এদের মধ্যেই একটি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাধীন ভ্যাকসিনটি। এটি ৬০ থেকে ৭০ বছর বয়সীদের ক্ষেত্রে দৃঢ় রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরি করছে বলে দাবী করা হচ্ছে।

বিখ্যাত মেডিকেল জার্নাল দ্য ল্যানসেটে সম্প্রতি এ বিষয়ক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়, মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের দ্বিতীয় ধাপে ৫৬০ সুস্থ স্বেচ্ছাসেবীর ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হয়েছে। সেখান থেকে যেসব তথ্য পাওয়া গেছে তা অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। এ ছাড়া এই ভ্যাকসিনের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া নেই বলে ল্যানসেটে পিয়ার রিভিউ হওয়া ফলাফলে জানানো হয়েছে।

দ্য ল্যানসেট বলছে, অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটি ১৮ থেকে ৫৫ বছর বয়সী ব্যক্তিদের মধ্যে যেমন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়েছে তেমনি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়েছে ৫৬ থেকে ৬৯ এবং ৭০ বয়সোর্ধ্বদের মধ্যে।

ইতোমধ্যে তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালের প্রাথমিক ফলে দেখা যাচ্ছে, ফাইজার-বায়োএনটেক, রাশিয়ার স্পুতনিক-৫ এবং মডারনার তৈরি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৯০ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি ভ্যাকসিনটি ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে ৯৪ শতাংশ কার্যকর বলে জানানো হয়েছে।

ফাইজার ও বায়োএনটেকের ভ্যাকসিনটি সব নিরাপত্তার ধাপে পাশ করেছে। এই ভ্যাকসিনের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো উদ্বেগ নেই। কোম্পানি দুইটি জানিয়েছে, তারা এখন বাজারে ভ্যাকসিন ছাড়তে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানোর জন্য প্রস্তুত। ফাইজার ও এর জার্মান অংশীদার বায়োএনটেক গত সপ্তাহে জানিয়েছিল যে, তাদের ভ্যাকসিন শতকরা ৯০ শতাংশ কার্যকর। এটি কোভিড-১৯ ভাইরাসের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয় বলে প্রচার হয়।

তবে এ সপ্তাহে আসা আরো পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, এটি ৯৫ শতাংশ কার্যকর। ফাইজার জানিয়েছে, তাদের টিকা বয়স্কদেরও করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সক্ষম। ৬৫ বয়সোর্ধ্বদের ক্ষেত্রে এই ভ্যাকসিন ৯৪ শতাংশ কার্যকর।

ইত্তেফাক/টিআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত