চীনকে চাপে রাখতে হোয়াইট হাউজে তিব্বতের নির্বাসিত সরকার প্রধান

চীনকে চাপে রাখতে হোয়াইট হাউজে তিব্বতের নির্বাসিত সরকার প্রধান
হোয়াইট হাউজে তিব্বতের নির্বাসিত সরকার প্রধান।

কয়েকদিন আগেই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও অভিযোগ করেছিলেন যে তিব্বতের বাসিন্দাদের ওপর চীনের সরকার অকথ্য অত্যাচার করছে চীন। আর তারপরই আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে হোয়াইট হাউজে ঘুরে এলেন তিব্বতের নির্বাসিত সরকারের প্রধান লোবসাং সাঙ্গে।

জানা গেছে, প্রায় দীর্ঘ ৬০ বছর পরে হোয়াইট হাউজে গেলেন তিব্বতের কোনও নেতা। এই ঘটনায় এখনো চীনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। এ দিকে পর্যন্ত হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকেও এ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো জানায় , কয়েকদিন আগে তিব্বত সংক্রান্ত বিষয়টি তদারকির জন্য রবার্ট ডেস্ট্রো বলে একজন কূটনীতিবিদকে নিযুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এরপরই রবার্ট ভারতের ধর্মশালায় আশ্রয় নেওয়া নির্বাসিত তিব্বত সরকারের প্রধান লোবসাং সাঙ্গেকে হোয়াইট হাউজে যাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানান। সেই আবেদন সাড়া দিয়ে গতকাল হোয়াইট হাউজে রবার্ট ডেস্ট্রোর সঙ্গে সাক্ষাত করতে যান নির্বাসিত তিব্বত সরকারের প্রধান।

২০১১ সালে তিব্বতের নির্বাসিত সরকারের প্রধান নিযুক্ত হওয়ার পর থেকে আমেরিকার সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন লোবসাঙ্গ সানগে। গত ১০ বছরে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় আমেরিকার প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করে তিব্বতের সমস্যার সমাধানের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। তবে এবার সরাসরি হোয়াইট হাউসেই ডাক পেলেন লোবসাং সাঙ্গে।

ইত্তেফাক/এআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত