ফল উলটাতে ট্রাম্পের সব চেষ্টাই ব্যর্থ হচ্ছে

বাইডেনের মন্ত্রিসভা গঠন নিয়েও প্রশ্ন ট্রাম্পের
ফল উলটাতে ট্রাম্পের সব চেষ্টাই ব্যর্থ হচ্ছে
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: সংগৃহীত

ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের কাছে পরাজয় মানতে নারাজ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত ৩ নভেম্বরের ভোটের ফল উলটাতে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। জালিয়াতির অভিযোগ তুলে পাঁচটি ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যে এক ডজনের বেশি মামলা করেছেন। অর্ধেকের বেশি মামলা খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

সর্বশেষ শনিবার পেনসিলভেনিয়ায় ডাকযোগের ভোট বাতিলের মামলাও খারিজ হয়েছে। এদিকে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মন্ত্রিসভা গঠন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ট্রাম্প। তিনি আবারো স্পষ্ট করে জানিয়েছেন, নির্বাচনের ফল তিনি মানেন না।

সব চেষ্টাই ব্যর্থ হচ্ছে

আজই পেনসিলভেনিয়ায় বাইডেনকে জয়ী ঘোষণা করে আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশ করা হতে পারে। গুরুত্বপূর্ণ এই অঙ্গরাজ্যে হারার পর ট্রাম্পের সব চেষ্টা ব্যর্থ হতে চলেছে। যদিও তার টিম পেনসিলভেনিয়ায় আপিল করার চিন্তা করছে। জর্জিয়ায় বাইডেনকে জয়ী ঘোষণার পর সেখানে আবারও ভোট গণনার অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। কিন্তু নতুন গণনায় ফল বদলানোর কোনো সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করছে জর্জিয়ার প্রশাসন।

সিএনএনের এক বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, নির্বাচনের ফল বদলানোর ব্যাপারে ট্রাম্পের প্রচেষ্টা অসংলগ্ন হয়ে পড়ছে। মামলা খারিজ করে পেনসিলভেনিয়ার বিচারক ম্যাথু ব্রান বলেন, ট্রাম্পের টিম ৭০ লাখ ভোটারের অধিকার হরণ করতে চেয়েছে। আদালত একজনেরও ভোটাধিকার হরণ করতে পারে না। আদালতের কাজ সংবিধান সমুন্নত রাখা। ট্রাম্প টিমের অভিযোগের কোনো প্রমাণ বা যৌক্তিকতা নেই। এই অভিযোগ ফ্রাঙ্কেন স্টাইনের দানবের মতো, বিশৃঙ্খলপূর্ণভাবে উত্থাপিত। আদালতের সিদ্ধান্তের পর পেনসিলভেনিয়ার রিপাবলিকান সিনেটর প্যাট টুমে ট্রাম্পকে পরাজয় মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে জর্জিয়ায় আবারও ভোট গণনার অনুরোধ করেছে ট্রাম্প টিম। যদিও জর্জিয়া সরকার হাতে ভোট গণনার পর চূড়ান্তভাবে ফল প্রকাশ করেছে। এখন আবারও মেশিনে ভোট গণনা হতে পারে। তবে তাতে ট্রাম্পের ভাগ্য বদলাবে না। আপাত দৃষ্টিতে ট্রাম্পের প্রচেষ্টা শেষ হয়ে এসেছে।

বাইডেনের মন্ত্রিসভা গঠন নিয়ে প্রশ্ন ট্রাম্পের

বিবিসি জানায়, গতকাল এক ফেসবুকে পোস্টে ট্রাম্প লিখেছেন, জো বাইডেন কেন দ্রুত তার মন্ত্রিসভা গঠন শুরু করেছেন যখন আমার তদন্তকারীরা লাখ লাখ জাল ভেটের সন্ধান পেয়েছেন? এই জাল ভোট বাতিল হলে চারটি রাজ্যের ফল উলটে যাবে এবং নির্বাচনের ফলও উলটে যাবে। আশা করি আমাদের নির্বাচনি প্রক্রিয়া এবং দেশ হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বাসযোগ্যতা রক্ষায় আদালত এবং নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা তাদের সাহস দেখাবেন। বিশ্ববাসী সব দেখছে!!!

ক্ষমতা ছাড়তে অস্বীকারে ট্রাম্পের ভাগ্যে কী ঘটতে পারে?

আগামী ২০ জানুয়ারি বাইডেনের দায়িত্ব নেওয়ার কথা। কিন্তু এখন পর্যন্ত ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করেনি ট্রাম্প প্রশাসন। এ কারণে যুক্তরাষ্ট্র এখন দুটি বড় সংকটের মুখে। একটি করোনা মহামারি অন্যটি ট্রাম্পের অগণতান্ত্রিক ষড়যন্ত্র। ওয়াশিংটন পোস্টের বরাত দিয়ে ভারতের এনডিটিভি জানায়, পরাজয় মানতে অস্বীকৃতি জানালেও ট্রাম্প তার বিশ্বস্ত বন্ধুদের বলেছেন, ২০২৪ সালের জন্য প্রচারণার ঘোষণা এ বছরের শেষ নাগাদ দিতে পারেন। আর তাহলে আবারও ভোটযুদ্ধে বাইডেন ও ট্রাম্পকে দেখবে বিশ্ব। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নির্বাচনী ফল উলটাতে ব্যর্থ হলে ২০ জানুয়ারি দুপুর ১২টা এক মিনিটে বাইডেন ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরাজয় স্বীকার করুন আর নাই করুন এটি হবে। এই পর্যায়ে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো এবং সেনাবাহিনী সাবেক প্রেসিডেন্টকে অগ্রাহ্য করতে পারবে।

ডিসেম্বরে করোনার টিকা প্রয়োগ

গতকাল যুক্তরাষ্ট্র সরকারের করোনা টিকা প্রকল্পের প্রধান মনসেফ স্লাউই সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বলেছেন, আমাদের পরিকল্পনা হচ্ছে অনুমোদন পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে এগুলো পাঠানোর সক্ষমতা অর্জন।’ তিনি বলেন, আশা করছি অনুমোদন পাওয়ার দ্বিতীয় দিন ১১ বা ১২ ডিসেম্বর’ থেকে এটি দেওয়া শুরু হবে। বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, টিকার অনুমোদনের ব্যাপারে আলোচনার জন্য মার্কিন ওষুধ ও খাদ্য প্রশাসন ৮ থেকে ১০ ডিসেম্বর বৈঠকে বসবে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত