আমিরাতের ভিসা নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে ইসরায়েল!

আমিরাতের ভিসা নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে ইসরায়েল!
আমিরাতের ভিসা নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে ইসরায়েল। ছবি: সংগৃহীত

কিছুদিন আগে বেশ কিছু মুসলিম রাষ্ট্রের ভিসার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। হঠাত কেনও এরকম সিদ্ধান্ত নেয়া হল সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য দেয়নি আমিরাত কর্তৃপক্ষ। বিশ্লেষকদের দাবী, ইসরায়েলকে খুশি করতেই এমন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাতে জানা যায়, সংযুক্ত আরব আমিরাতের এ সিদ্ধান্ত গত ১৮ নভেম্বর থেকে কার্যকর হয়েছে। যেসব দেশ আমিরাতের ভিসা নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়েছে সেগুলো হলো -ইরান, তুরস্ক, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, কেনিয়া, সোমালিয়া, আলজেরিয়া, লেবানন, সিরিয়া, ইরাক, লিবিয়া, তিউনিশিয়া এবং ইয়েমেন।

আমিরাত সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, তালিকাভুক্ত এসব দেশের লোকজন কর্মসংস্থানের জন্য কিংবা টুরিস্ট ভিসার জন্যও আবেদন করতে পারবে না। এ ব্যাপারে আমিরাত সরকার দেশটির ইমিগ্রেশন অথরিটির কাছে একটি আবেদন পত্র জমা দিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ ও নিরাপত্তা বিশ্লেষক অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল মুনীরুজ্জামান বলেন, এই নিষেধাজ্ঞার পেছনে মুখ্য ভূমিকা পালন করছে ইসরায়েল । আপনারা খেয়াল করলে দেখবেন যেসব দেশের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে তাদের সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক খুবই ভালো। আরো বড় বিষয় হলো- এই ১৩টি দেশের ১১টিই প্রকাশ্যে আমিরাত-ইসরায়েল সম্পর্কের বিরোধিতা করেছে।

ইত্তেফাক/টিআর

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত