জাপানে বিড়ালছানার চেয়ে সিংহের দাম কম!

জাপানে বিড়ালছানার চেয়ে সিংহের দাম কম!
জাপানে বিড়ালছানার চেয়ে সিংহের দাম কম। ছবি : সংগৃহীত

প্রযুক্তি নির্ভর দেশ জাপান। সেখানকার মানুষের দৈনন্দিন জীবনে সম্পৃক্ত নানা অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। এসব সুবিধা পেটে তাদের করতে হচ্ছে বাড়তি খরচ। যার কারণে ঐতিহ্যবাহী বিনোদনের মাধ্যমগুলো থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন অনেকে। জাপানের চিড়িয়াখানাগুলোতে ভিড় এক্ষণ তেমন নেই বললেই চলে। বনের রাজা খ্যাত সিংহের প্রতি মানুষের আকর্ষণ কমে গেছে৷

জাপানে কঠোরভাবে বন্যপ্রাণীদের নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এ বিষয়ক আইনও বেশ কড়া। তাই সাধারণ মানুষের পক্ষে সহজে সিংহ কেনা সম্ভব নয়৷ কিন্তু জাপানের ‘অ্যাসোসিয়েশন অফ চিড়িয়াখানা ও অ্যাকোয়ারিয়াম' বা যাজা-র প্রায় ৩০০ সদস্য প্রাণী বিক্রি করতে পারে৷ তাদের মাধ্যমে মেরু ভাল্লুক, জনপ্রিয় হাতি আর পান্ডা শাবকের মতো কিছু প্রজাতির চাহিদা সবসময়ই থাকে।

বুনো প্রাণী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রেপ জাপান-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাণী ব্যবসায়ী স্যুওশি শিরাওয়া জানান, এখন সিংহ সস্তায় পাওয়া যায়। আগে জাপানের প্রতিটি চিড়িয়াখানা এবং বন্যপ্রাণী পার্কগুলোতে সিংহের চাহিদা আগে অনেক বেশি ছিল। তবে এখন সিংহের জনপ্রিয়তা একদমই নেই৷ প্রাণীগুলো শিশু অবস্থায় সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেও বড় হলে শুরু হয় সমস্যা৷ যার কারণে একটি সিংহের মূল্য ১০০,০০০ ইয়েন অর্থাৎ ৮১২ ইউরো বা ৯৬৬ (৮২ হাজার টাকা) ইউএস ডলারের কমও হতে পারে৷

তিনি জানান, বিনামূল্যে সিংহ দিয়ে দেয়ার ঘটনাও রয়েছে জাপানে।

অপরদিকে পোষা প্রাণীর দোকানে একটি বিড়াল ছানার মূল্যও সিংহের দ্বিগুণ। জাপানে একটি বিড়াল ছানা কিনতে ৪০০,০০০ ইয়েন বা ৩,২৪৮ ইউরো পর্যন্ত গুণতে হয়৷

এ প্রসঙ্গে টোকিও ইউনিভার্সিটির পরিবেশ বিষয়ক বিশেষজ্ঞ কেভিন শর্ট বলেন, সিংহ পোষা ব্যয়বহুল, তাদের খিদে বেশি পায়, তাছাড়া জাপানে মাংসের মূল্য অনেক বেশি৷ সিংহের জন্য প্রয়োজন বড় খাঁচার, বেবি বা সিংহ শাবকরা দর্শকদের কাছে টানতে পারে, তবে প্রাপ্তবয়স্ক সিংহদের প্রতি জাপানীদের আকর্ষণ অনেক কম৷

ইত্তেফাক/টিআর

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত