ট্রাম্পের স্ন্যাপচ্যাট অ্যাকাউন্টও বন্ধ

ট্রাম্পের স্ন্যাপচ্যাট অ্যাকাউন্টও বন্ধ
স্থায়ীভাবে বন্ধ ট্রাম্পের স্ন্যাপচ্যাট অ্যাকাউন্টটি। ছবি: সংগৃহীত

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট এবার স্থায়ীভাবে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্ম স্ন্যাপচ্যাট। দেশটির কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

স্ন্যাপচ্যাটের অ্যাকাউন্ট বন্ধের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র বলেন, গত সপ্তাহেই আমরা ঘোষণা করেছিলাম বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হবে। আমাদের স্ন্যাপচ্যাট কমিউনিটির স্বার্থে দীর্ঘমেয়াদী পদক্ষেপ নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হয়েছে।

একে একে সব সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ হচ্ছে ট্রাম্পের। এর আগে তার ফেসবুক ও টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়। সহিংসতা ছড়ানোর আশঙ্কায় সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে তার ইউটিউব চ্যানেলও।

ইউটিউব চ্যানেল বন্ধের বিষয়ে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সম্ভাব্য সহিংসতার আশঙ্কায় আমরা ডোনাল্ড ট্রাম্পের চ্যানেলে আপলোড করা নতুন ভিডিও সরিয়ে দিয়েছি। চ্যানেলটিতে সাময়িকভাবে নতুন কোনও কিছু আপলোড করা যাবে না। এ নিষেধাজ্ঞা অন্তত আগামী সাত দিন বহাল থাকবে।

আরও পড়ুন: ট্রাম্পের ইউটিউব চ্যানেল স্থগিত

এর আগে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক, টুইটার ও ইন্সটাগ্রাম ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়। দেশটির পার্লামেন্ট ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের নজিরবিহীন হামলার ঘটনার পরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তৎপর হন ট্রাম্প। বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে ভিডিও বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘আমি তোমাদের ভালোবাসি।’ এর পরপরই ফেসবুক ও টুইটার কর্তৃপক্ষ ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়। আর ভিডিও সরিয়ে নেয় ইউটিউব।

পার্লামেন্ট ভবনে ট্রাম্প সমর্থকদের নজিরবিহীন হামলা ও বিক্ষোভের ঘটনার মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্যত নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়লেন বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ফেসবুক ও টুইটার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পোস্টের মাধ্যমে সহিংসতা উস্কে দেয়া হয়েছে। এমনই অভিযোগ করছে ব্যবহারকারীরা। এজন্য ট্রাম্পের টুইটার ১২ ঘণ্টা এবং ফেসবুক ২৪ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে টুইটার এক্ষেত্রে আরও কঠোর বার্তা দিয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যদি ট্রাম্প বিতর্কিত টুইটগুলো মুছে না ফেলে তবে তার টুইটার অ্যাকাউন্ট সবসময়ের জন্য মুছে ফেলা হবে।

আরও পড়ুন: ট্রাম্পের ফেসবুক-টুইটার-ইন্সটাগ্রাম বন্ধ, ভিডিও সরালো ইউটিউব

অপরদিকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ট্রাম্পের পোস্ট সরানোর বিষয়ে বিবিকে জানিয়েছে, ওয়াশিংটনে সহিংস বিক্ষোভ দেশটির জন্য অপমানজনক। আমরা সবসময় উস্কানি নিষিদ্ধ করি এবং সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানাই। এজন্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পোস্টটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তার অ্যাকাউন্ট ২৪ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হয়েছে। এতে চলমান সহিংসতার ঝুঁকি হ্রাস করবে।

ইত্তেফাক/টিআর

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত