আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নেই, প্রেসিডেন্টও নন: পেলোসি

আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নেই, প্রেসিডেন্টও নন: পেলোসি
ট্রাম্পের অভিশংসন পত্রে সই করার পর পেলোসি। ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন নিয়ে সাংবিধানিক সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে দেশটি। বুধবার (১৩ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব পাস হয়। দেশটির ইতিহাসে ট্রাম্পই প্রথম প্রেসিডেন্ট, যিনি দ্বিতীয়বার অভিশংসিত হলেন।

ট্রাম্পের অভিশংসনের কথা নিশ্চিত করেছেন মার্কিন হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তিনি জানিয়েছেন, আইনের ঊর্ধ্বে নয় কেউ। বেপরোয়া এ রিপাবলিকান (ট্রাম্প) প্রেসিডেন্ট বিগত ১৩ মাসের মধ্যে দ্বিতীয় দফা অভিশংসিত হওয়ার পর গতকাল বুধবার তিনি একথা বলেন।

এক অনুষ্ঠানে কংগ্রেসের এই শীর্ষ ডেমোক্রেট আরও বলেন, দ্বি-দলীয় এ হাউসে আজ দেখা যায় যে কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়, এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টও।

এনডিটিভি জানায়, ওই অনুষ্ঠানেই তিনি অভিশংসন পত্রে স্বাক্ষর করেন। মার্কিন ক্যাপিটল হিল অভিমুখে মিছিল সহকারে যেতে তার সমর্থকদের উৎসাহিত করার পর বিদ্রোহমূলক কর্মকান্ডে মদদ দেয়ায় ৭৪ বছর বয়সী ট্রাম্প অভিশংসিত হয়েছেন।

দেশটির ইতিহাসে এই প্রথম কোনও প্রেসিডেন্টকে দ্বিতীয়বারের মত অভিশংসিত করা হলো।

বুধবার প্রতিনিধি পরিষদে ২৩২-১৯৭ ভোটে ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব পাস হয়। রিপাবলিকান দলের ১০ জন সদস্য ট্রাম্পের বিপক্ষে গিয়ে ভোট দিয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদে পাস হলেও তাকে আর ক্ষমতা থেকে সরানো যাচ্ছে না। কেননা ২০ তারিখের আগে সিনেটে কোন অধিবেশন বসছে না।

তবে সিনেটে অভিশংসনের প্রস্তাব পাস হলে ট্রাম্প আর কখনও নির্বাচনে আর দাঁড়াতে পারবেন না।

ইত্তেফাক/টিআর

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত