খালিস্তানিদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হয়ে উঠছে কানাডা 

খালিস্তানিদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হয়ে উঠছে কানাডা 
খালিস্তানি বিচ্ছিন্নতাবাদী জনগোষ্ঠী।

খালিস্তানি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে যোগসাজশ থাকা ভারতীয় বংশোদ্ভূত সাংসদ নবদীপ সিং বাইনসকে মন্ত্রীসভায় জায়গা দিয়েছিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। যদিও তিনি ইতোমধ্যেই পদত্যাগ করেছেন। নবদীপ সিং বাইনসের মন্ত্রীসভায় জায়গা পাওয়াই প্রমাণ করে যে খালিস্তানিদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হয়ে উঠছে কানাডা।

কানাডার গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, কানাডানিয়ান নেতা এবং পাকিস্তানি কূটনীতিকদের সহায়তায় খালিস্তানীরা কানাডায় আশ্রয় পাচ্ছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, খালিস্তানীরা সম্প্রতি টরেন্টোর পাকিস্তান দূতাবাসের ভারতবিরোধী বৈঠকের আয়োজন করেছিল। অভিযোগ রয়েছে যে পাকিস্তানের কূটনীতিকরা খালিস্তানি সন্ত্রাসীদের সহায়তা করছে । এছাড়া পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থাও এর সঙ্গে জড়িত রয়েছে। আর কানাডার পাকিস্তান দূতাবাস থেকেই এই সব কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।

খালিস্তানি অনেক সন্ত্রাসী এখন স্বাধীনভাবে কানাডায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। ১৯৮৫ সালের ২৩ জুন এয়ার ইন্ডিয়ার ‘কনিষ্ক’ বিমান উড়িয়ে দেয় খলিস্তানি জঙ্গিরা। ঐ হামলায় ৩২৯ জন যাত্রী নিহত হন। সেই হামলার সঙ্গে জড়িতে অনেকেই এখন কানাডায় আশ্রয় নিয়েছেন।

অভিযোগ উঠেছে যে, গত কয়েক বছর ধরে খালিস্তানি লবিং সেন্টারের হিসেবে কাজ করছে কানাডা। কানাডার সরকারের উচিৎ এই বিষয়টি নিয়ে খোলাসা করা। কে তাদের ভিয়াস দিচ্ছে? কেন কানাডার নেতারা তাদের সঙ্গে সাক্ষাত করতে আগ্রহী?

কানাডা খালিস্তানিদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হয়েছে । আর এর পেছনে হাত রয়েছে পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই'র । ভারত চেষ্টা করে যাচ্ছে খালিস্তানিদের নিয়ন্ত্রণ করার জন্য। এখন এটি কানাডার বিষয় যে তারা কি খালিস্তানিদের আশ্র্য় দিয়ে যাবে নাকি তাদেরকে ত্যাগ করবে।

ইত্তেফাক/এআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x