দুই মেয়েকে হত্যার পর দম্পতির দাবি, ‘বাঁচিয়ে তুলতে পারবো’

দুই মেয়েকে হত্যার পর দম্পতির দাবি, ‘বাঁচিয়ে তুলতে পারবো’
ছবি: সংগৃহীত

নিজ দুই মেয়েকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে এক দম্পতির বিরুদ্ধে। দুই মেয়েকে হত্যার পর ওই দম্পতির দাবি, সময় দিলে তাদের বাঁচিয়ে তুলতে পারবেন। রবিবার ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের চিত্তুর জেলার মাদানাপাল্লে মণ্ডলে ঘটেছে এই ঘটনা।

দেশটির পুলিশ মনে করছে, এই ঘটনার পেছনে অন্ধবিশ্বাস জড়িত কোনও প্রথা রয়েছে।

প্রতিবেশীদের থেকে খবর পেয়ে পুলিশ যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়, তখন নিহত দুই তরুণীর মা দাবি করেন, একদিন সময় পেলেই তারা বাঁচিয়ে তুলতে পারবেন মেয়েদের।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত ওই দুই তরুণীর নাম আলেখ্য (২৭) এবং দিব্যা (২৩)। দু’জনেই লাল শাড়ি পরা অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে ছিলেন। তাদের মাথা থেকে রেরোচ্ছিল রক্ত।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মেয়েদের খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত বাবা-মা হলেন ভি পদ্মজা এবং ভি পুরষোত্তম নাইডু। তাদের দুজনের বয়সই ৫০-এর ঘরে। দুইজনেই উচ্চশিক্ষিত এবং শিক্ষকতা পেশার সঙ্গে জড়িত।

জানা যায়, দুই মেয়েকে খুনের আগে ওই দম্পতির বাড়িতে পূজা হয়। পুলিশ জানায়, ওই দম্পতি মনে করতেন, তাদের মেয়েদের মধ্যে কোনও অশুভ শক্তি বাসা বেঁধেছে।

প্রতিবেশীরা জানান, ঘটনার আগে লাল শাড়ি পরে নিজেদের বাড়ি প্রদক্ষিণ করতেও দেখেন তাদের। অনুষ্ঠানের পর রবিবার রাতে পদ্মজা দুই মেয়ের মাথায় ডাম্বল দিয়ে সজোরে আঘাত করেন বলে অভিযোগ।

তদন্তকারী পুলিশ অফিসার রবি মনোহরা ছারি বলেছেন, ‘অপরাধস্থলের অবস্থা দেখে বোঝা যাচ্ছিল, সেখানে পূজা হয়েছিল। দুই যুবতী লাল শাড়িতে লুটিয়ে পড়েছিল। এবং ওই দম্পতি অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছিলেন।’

আরও পড়ুন: ব্রাজিলে বাস উল্টে নিহত ১৯

তিনি আরও বলেছেন, ওই বাড়িতে চারজন থাকতেন। পদ্মজা মেয়েদের মারার সময় পুরষোত্তম কোনও বাধা দেননি। ওই বাড়িতে সিসিটিভি ক্যামেরার খোঁজ পাওয়া গিয়েছে তা বিশ্লেষণ করে দেখা হবে। মনে হচ্ছে এই খুনের সঙ্গে অন্ধবিশ্বাস জড়িয়ে রয়েছে। আমরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর অভিযুক্তরা বলছিল, একদিন সময় দিলে তারা মৃত মেয়েদের বাঁচিয়ে তুলবেন।

ইত্তেফাক/এসআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x