তুষারঝড়ের পর টেক্সাসে তীব্র পানি সংকট

তুষারঝড়ের পর টেক্সাসে তীব্র পানি সংকট
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে গত সপ্তাহের ভয়াবহ তুষারঝড়ের পর বিশুদ্ধ পানি ও বিদ্যুতের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তুষারঝড়ে অনেক জায়গায় পানির পাইপ ফেটে যাওয়ায় পানি সরবরাহে সমস্যা তৈরি হয়েছে। একারণে তীব্র ঠাণ্ডার মধ্যেই বিশুদ্ধ বাইরে ভিড় করছেন ভুক্তভোগীরা।

কয়েদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্যাঞ্চলে তাণ্ডব চালিয়ে গেছে তীব্র শীত ও তুষারঝড়। এতে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৪০ জন। সেখানে এখনো বিদুৎবিচ্ছিন্ন কয়েক লাখ মানুষ। এ নিয়ে ক্রমেই ক্ষোভ বাড়ছে স্থানীয়রদের মধ্যে। শুক্রববার হিউস্টনের বাসিন্দা পার্সি ম্যাকগি তার ক্ষোভের পরিমাণ বোঝাতে বলেছেন, এটি ‘১০ নম্বর’ পর্যায়ে চলে গেছে। তিনি জানান, ভোর পাঁচটায় ঘুম থেকে উঠে ছয়টা থেকে শহরের ডেলমার স্টেডিয়ামের সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। বিপর্যয়ের পর থেকে সেখানে বোতলজাত পানি বিতরণ করা হচ্ছে। পার্সি বলেন, এখন বাজে সাড়ে ১১টা। তারপরও আমি বসে থাকব। মানে আমার আর কোনো উপায় তো নেই। আমার এলাকার সব দোকানের পানি ফুরিয়ে গেছে। তিনি বলেন, আমি ডায়াবেটিক রোগী। বাসায় ৯৪ বছর বয়সী আরেকজন ডায়াবেটিক রোগী রয়েছেন। আমাদের কাছে ওষুধপত্র কিছু নেই। আমি সত্যিই খুব হতাশ। তারপরও চেষ্টা করছি টিকে থাকতে।

এরিকা গ্রানাডো নামে হিউস্টনের আরেক বাসিন্দা বলেন, তিনি খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্টেডিয়ামে ছুটে যান। এ নারী বলেন, ‘আমাকে তাড়াতাড়ি আসতে হতো। কারণ আমি জানি, সবাই... সবাই পানি চায় এবং এটা সবার জন্যই কঠিন সময়।’

শুক্রবার থেকে বিরূপ আবহাওয়া ধীরে ধীরে দেশটির উত্তরপূর্বে সরে যেতে শুরু করে। টেক্সাসের তাপমাত্রা এখন তুষারপাতের মতো না হলেও দুরবস্থা কাটেনি। দেশটির ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস পূর্বাভাস দিয়েছে, এ সপ্তাহজুড়ে রাজ্যটির তাপমাত্রা ১০ থেকে ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকতে পারে। বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দেওয়ায় রাজ্যটির প্রায় ৭০ লাখ বাসিন্দাকে পানি ফুটিয়ে পান করার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। টেক্সাস কমিশন অন এনভায়রনমেন্টাল কোয়ালিটির প্রধান টবি বেকার জানিয়েছেন, রাজ্যের অন্তত দুই লাখ ৬৪ হাজার মানুষ পানি সংকটে ভুগছেন।

স্থানীয় গভর্নর গ্রেগ অ্যাবোটের ভাষ্যমতে, শুক্রবার পর্যন্ত টেক্সাসের ১ লাখ ৬৫ হাজারের মতো বাসিন্দা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন ছিলেন। অ্যাবোটের সঙ্গে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। পরিস্থিতি মোকাবিলায় স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে কেন্দ্রীয় প্রশাসন সহযোগিতা করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

ইত্তেফাক/এআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x