মেয়ের মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার পথেই গ্রেফতার বাবা

মেয়ের মাথা হাতে নিয়ে থানায় যাওয়ার পথেই গ্রেফতার বাবা
ছবি: সংগৃহীত।

১৭ বছর বয়সী মেয়ের সঙ্গে এক যুবকের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। কিন্তু সেই সম্পর্ক মানতে না পেরে মেয়েকে খুন করে বসল বাবা। শুধু তাই নয়, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথা কেটে পুলিশ স্টেশনের উদ্দেশে হাঁটতেও থাকে সে। শেষপর্যন্ত অবশ্য খবর পেয়ে চলে আসেন পুলিশ আধিকারিকরা। তারপরই গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্তকে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের হারদৌ জেলার একটি গ্রামে। বুধবার বিকেলে ওই নির্মম কাণ্ড ঘটায় অভিযুক্ত সর্বেশ কুমার।

স্থানীয়রা জানান, প্রথমে ধারালো অস্ত্র মেয়েকে খুন করে সর্বেশ। তারপর তার মাথা কেটে নির্লিপ্তভাবেই রাস্তা দিয়ে হেঁটে থানার উদ্দেশে যেতে থাকে। গ্রামের মানুষও ওই দৃশ্য দেখে অবাক হয়ে যান। তারাই পুলিশে খবর দেন। এরপর দুই কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে আসেন। তারাও ওই দৃশ্য দেখে অবাক হয়ে যান। এরপরই ভিডিও করতে থাকেন ওই পুলিশ কর্মকর্তারা। সর্বেশের ব্যাপারে খুঁটিনাটি তথ্য জানার চেষ্টা করেন। পরে অভিযুক্তও সমস্ত প্রশ্নেরই উত্তর দেয়।

জানায়, নিজেই সে মেয়েকে খুন করেছে। দেহ এখনও ঘরেই রয়েছে। সর্বেশ বলেন, আমিই খুন করেছি। অন্য কেউ নেই। ঘরের দরজা বন্ধ রয়েছে। মেয়ের দেহও ঘরেই পড়ে আছে।

এরপরই ওই পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে রাস্তার পাশে বসতে বলে। অভিযুক্ত কোনওরকম আপত্তি না জানিয়ে সেটাই করে। পরবর্তীতে আরও পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে তাকে গ্রেফতার করে।

ইত্তেফাক/এআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x