‘আফগানিস্তানে জুড়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে আল কায়েদা’

‘আফগানিস্তানে জুড়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে আল কায়েদা’
ফাইল ছবি।

ভারতীয় উপমহাদেশ এবং আফগানিস্তান জুড়ে তত্পরতা চালিয়ে যাচ্ছে আল কায়দা এবং এর আঞ্চলিক শাখা গুলো। তবে তালেবানরা দাবি করছে যে এই গ্রুপটির আফগানিস্তানে আল কায়দার কোন উপস্থিতি নেই।

আল কায়দার নিজস্ব মিডিয়ার মাধ্যমে ১৮ টি প্রদেশে তাদের গ্রুপগুলোর কার্যক্রমের কথা উল্লেখ করেছে। আবার আফগান সুরক্ষা বাহিনী আরও কয়েকটি প্রদেশে আল কায়েদা কর্মীদের উপস্থিতি লক্ষ করেছে। সব মিলিয়ে আল কায়েদা আফগানিস্তানের ৩৪ টি প্রদেশের কমপক্ষে ২১ টিতে তাদের কার্যক্রম চালু রেখেছে।

ইসলামিক স্টেটের আল নাবা নিউজ সার্ভিসের সাথে যুক্ত, আল কায়েদার সাপ্তাহিক নিউজলেটার থাবাত এর বরাতে জানা যায়, আফগানিস্তানে আল কায়েদার একাধিক তৎপরতার প্রতিবেদন সামনে এসেছে।

এদিকে জাতিসংঘের বিশ্লেষক ও নিষেধাজ্ঞা মনিটরিং দল বলেছে, 'থাবাত হচ্ছে আল কায়দা'র একটি মিডিয়া অস্ত্র যেটাকে আলকায়েদা তাদের পরিকল্পনা মতো ব্যবহার করছে।

তালেবানরা তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভয়েস অফ জিহাদে আফগান সুরক্ষা বাহিনী এবং সরকারী লক্ষ্যবস্তুদের বিরুদ্ধে প্রতিদিন কয়েক ডজন হামলার খবর প্রকাশ করেছে, থাবাত কেবলমাত্র ভারতীয় উপমহাদেশে আল কায়েদা আক্রমণের রিপোর্ট গুলো করেছে,

পাশাপাশি তাদের মিত্র দলগুলো যেমন ইসলামিক জিহাদ ইউনিয়ন, ইসলামিক মুভমেন্ট অফ উজবেকিস্তান, লস্কর-ই-তৈয়বা, জাইশ-ই-মোহাম্মদ, কাতিবাত ইমাম বুখারী, জামায়াত আনসারুল্লাহ সহ অন্যান্য দল গুলোও প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত রয়েছে।

থাবাতে এসেছে যে, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত আফগান সংবাদমাধ্যমগুলি নিশ্চিত করে যে আল কায়েদা এবং তার সহযোগীরা সাতটি প্রদেশে কাজ করছে। প্রদেশগুলো হলো, বদখশান, ফারাহ, গজনী, হেলমান্দ, কাপিসা, কর্ণার এবং নানগর।

অধিকন্তু, আফগান সুরক্ষা বাহিনী আল-কায়েদার দুটি অন্যান্য প্রদেশে টার্গেট করেছিল যা তারা থাবাতের সংবাদে উল্লেখ করেনি। প্রদেশ গুলো হলো, নিমরোজ এবং পাটিকা। কিন্তু অন্যান্য মিডিয়ায় এসেছে নয়টি প্রদেশে নয় আল-কায়েদার অভিযান চালিয়েছিল এক ডজনেরও প্রদেশকে কেন্দ্র করে।

এদিকে আরও একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে যে আফগানিস্তান জুড়ে ৪০০ থেকে ৬ হাজার কর্মী রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আল কায়দা এবং মিত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলি গত দুই দশক ধরে তালেবানদের সহায়তায় আফগানিস্তানে কাজ করে আসছে।

ইত্তেফাক/এএইচপি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x