জেরুজালেমে সহিংসতা ও ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

জেরুজালেমে সহিংসতা ও ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ
ছবি: সংগৃহীত

ঐতিহাসিক আল আকসা মসজিদ চত্বরে তীব্র সহিংসতা ও পূর্ব জেরুজালেম থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করার ইসরায়েলি পরিকল্পনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রবিবার (৯ মে) ইসরায়েলের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মীর বেন-শব্বাতের সঙ্গে এক ফোনালাপে এ উদ্বেগ ব্যক্ত করেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান। আজ সোমবার (১০ মে) এ খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, ফোনালাপে ইসরায়েলি সরকারকে জেরুজালেম দিবস উদযাপনের সময় শান্তির লক্ষ্যে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে উত্সাহিত করেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রবিবার পূর্ব জেরুজালেমের কিছু অংশে ফিলিস্তিনি ও ইসরায়েলি পুলিশের মধ্যে নতুন করে আবারও সংঘাত শুরু হয়। শেখ জারাহ এবং প্রাচীরের পুরাতন শহরের বাহিরে, পাশাপাশি ইসরায়েলের একটি মিশ্র আরব-ইহুদি শহর হাইফায় এ সহিংসতা ছড়িয়ে পরে।

রয়টার্স জানায়, ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে ইসরায়েলের দখলকৃত অঞ্চল পূর্ব জেরুজালেমের শেখ জারাহ পাড়া থেকে বেশ কয়েকটি ফিলিস্তিনি পরিবারকে পরিকল্পিতভাবে উচ্ছেদ করার পরে এই সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়েছিল।

পবিত্র রমজান মাসের শুরু থেকেই জেরুজালেমের অধিকৃত পশ্চিম তীর এবং গাজায় ফিলিস্তিনি জনগণ ও ইসরায়েলি বাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে গিয়েছে। গত শুক্রবার বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে রাবার বুলেট ও স্টান গ্রেনেড ছুড়ে পুলিশ। এতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৮ ইসরায়েলি পুলিশ এবং ২০৫ জন ফিলিস্থিনি নাগরিক আহত হয়েছেন। শনিবার সেখানে আবারও সংঘর্ষ হয়।

এদিন আল আকসা মসজিদে পবিত্র লাইলাতুল কদরের নামাজ আদায় করছেন প্রায় ১০ হাজার মুসল্লি। অন্যদিকে, মসজিদের বাহিরে ইসরায়েলি পুলিশের সঙ্গে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের সহিংসতা চলছে। শনিবার রাতে হওয়া এ সহিংসতায় কমপক্ষে ৮০ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে এক বছর বয়সী শিশুও আছে।

ইত্তেফাক/টিএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x