বিধান পরিষদ গড়তে চাইছেন মমতা

বিধান পরিষদ গড়তে চাইছেন মমতা
ছবি: সংগৃহীত।

ভারতের সংসদের উচ্চ কক্ষ রাজ্যসভার আদলে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার উচ্চ কক্ষ ‘বিধান পরিষদ’ (লেজিসলেটিভ কাউন্সিল) গড়তে চাইছেন মমতা ব্যানার্জি। এই কক্ষের নির্বাচিত সদস্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন। গতকাল সোমবার পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রিসভা ‘বিধান পরিষদ’ গড়ার সিদ্ধান্ত অনুমোদন দিয়েছে। এবার এটি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় বিল হিসেবে পেশ করা হবে। সেখানে পাশের পর ভারতের লোকসভা এবং রাজ্যসভার অনুমোদন পেলে এটি আইনে পরিণত হবে। উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথ, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে বিধান পরিষদ থেকে নির্বাচিত হয়েছেন।

ভারতের ছয়টি রাজ্যে বিধান পরিষদ রয়েছে। সেগুলো হলো—উত্তর প্রদেশ, বিহার, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, অন্ধ্র প্রদেশ এবং তেলেঙ্গানা। যদিও ভারত সরকার বিধান পরিষদ গড়ার বিষয়ে খুব একটা আগ্রহী নয়। তারপরও ২০১৪ সালে অন্ধ্র প্রদেশ রাজ্য ভেঙে তেলেঙ্গানা গঠিত হওয়ার পর সেখানে বিধান পরিষদ গড়ার বিষয়ে অনুমোদন দেয়। ভারতীয় সংবিধানের নিয়ম বলছে লোকসভায় নির্বাচিত না হয়েও ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়া যায়। সেক্ষেত্রে তাকে প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার ছয় মাসের মধ্যে লোকসভা বা রাজ্যসভায় নির্বাচিত হতে হবে। ১৯৬৬ সালে ইন্দিরা গান্ধী, ১৯৯৬ সালে এইচ ডি দেভে গৌড়া, ১৯৯৭ সালে আই কে গুজরাল এবং ২০০৪ সালে মনমোহন সিং রাজ্যসভার সদস্য হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। রাজ্যসভায় সদস্য নির্বাচিত হওয়া যায় রাজ্যগুলোর এমএলএদের ভোটে।

একইভাবে রাজ্যগুলোতেও বিধান পরিষদ থাকলে সেখান থেকে নির্বাচিত সদস্যরা সংশ্লিষ্ট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন। যেমনটা হয়েছে উত্তর প্রদেশ, বিহার, মহারাষ্ট্রের ক্ষেত্রে। এখানেও নিয়ম একই। মুখ্যমন্ত্রী পদে বসার ছয় মাসের মধ্যে তাকে বিধানসভা বা বিধান পরিষদের সদস্য হতে হবে। বিধান পরিষদের সদস্যরা নির্বাচিত হন সংশ্লিষ্ট রাজ্যের এমএলএদের ভোটে।

পশ্চিমবঙ্গে সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস জিতলেও হেরে গেছেন মমতা ব্যানার্জি। তিনি ৫ মে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। সেক্ষেত্রে আগামী ৫ নভেম্বরের মধ্যে বিধানসভায় নির্বাচিত হতে হবে। কোভিড পরিস্থিতিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য উপনির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে ভারতের নির্বাচন কমিশন। সেক্ষেত্রে মমতা ছয় মাসের মধ্যে উপনির্বাচনের সম্মুখীন নাও হতে পারেন। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিকল্প হিসেবে বিধান পরিষদ গঠন করে সেখানকার সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পরিকল্পনা করছেন মমতা। তবে তার সেই পরিকল্পনায় বিজেপি পরিচালিত ভারত সরকার সম্মতি দেবে কি না, সেটা ভবিষ্যত্ বলবে।

ইত্তেফাক/এসএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x