নিজেকে ট্রাম্পের মেয়ে দাবি করে আদালতে পাকিস্তানি নারী

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

আম্মারা মাজহার। ছবি: কোলকাতা ২৪

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে আলোচনার আর শেষ নেই। তাকে ঘিরে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ হচ্ছে। এবার পাকিস্তানে ট্রাম্পেটকে নিয়ে চলছে বেশ আলোচনা।

লাহোরের বাসিন্দা আম্মারা মাজহার নামের এক নারীর দাবি, তিনি নাকি ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে। কোনও পালিত বা অবৈধ নয়। ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিয়ে করা স্ত্রীর গর্ভজাত সন্তান। এ নিয়ে পাকিস্তানের একাধিক সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

ইতোমধ্যে আম্মারা মাজহার নিজের প্রতি সুবিচার পেতে এবং যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যেতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। আবেদন করেছেন লাহোর হাইকোর্টে। প্রয়োজনে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টেও যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। আদালত তার আবেদনকে গুরুত্ব সহকারে নিয়েছে।

আম্মারা আদালতকে জানান, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম স্ত্রী ইভানা ট্রাম্পের সন্তান তিনি। তাকে নিয়ে ইভানা খুব উদাসীন ছিলেন।

আরো পতুন: ভারতীয় ছবিতে তিশা

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ট্রাম্পের মত একজন ধনীর মেয়ে পাকিস্তানে এল কীভাবে? এমন প্রশ্নে আম্মারা বলেন, সে দেশেই জন্মেছিলেন তিনি। আর ওই দেশেই কেটেছে তার শৈশব। তাকে অপহরণ করে পাকিস্তানে নিয়ে আসা হয়। তারপর থেকে লাহোরে রয়েছেন তিনি।

তবে পাকিস্তানের এক চিকিৎসক বলেন, মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণে ভুল কথা বলছেন ওই নারী। তার মস্তিষ্ক পাকিস্তানের বাইরে নানা জায়গায় ঘুরছে। তেমনই একটি হচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই ট্রাম্পকে নিয়ে এসব কথা বলছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম স্ত্রী ইভানা ট্রাম্প। ১৯৯২ সালে ভেঙে যায় তাদের দাম্পত্য জীবন। সবশেষ ২০০৫ সালে মেলানিয়াকে বিয়ে করেন ট্রাম্প। 

ইত্তেফাক/জেডএইচ