বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

‘সবাই এখন শিল্পের চেয়ে বাণিজ্যের দিকে বেশি ঝুঁকছে ’

আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৪১

এদেশের নিভৃতচারী এক অভিনেতা জাহিদ হোসেন শোভন। একাধারে মঞ্চ, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে নিবিষ্টভাবে গত তিন দশক ধরে কাজ করছেন। এ সপ্তাহে মুক্তি পাচ্ছে তার অভিনীত নতুন চলচ্চিত্র ‘রূপসা নদীর বাঁকে’। দেশ বরেণ্য চিত্রনির্মাতা তানভীর মোকাম্মেল এর নির্মাণে এই ছবির প্লটটাই ভিন্ন। দীর্ঘদিন পর গুণী এই অভিনেতা কাজ করেছেন ছবিটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে। সাম্প্রতিক সেই কাজ নিয়েই কথা হয় বিনোদন প্রতিদিনের সাথে। সাক্ষাত্কার নিয়েছেন মোস্তাফিজ মিঠু

এ সপ্তাহে আপনার নতুন সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। শুরুতে এ প্রসঙ্গে জানতে চাই—

১১ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে ‘রূপসা নদীর বাঁকে’। বামপন্থি জীবনকে কেন্দ্র করে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। যার মূলচরিত্রে অভিনয় করেছি আমি। এদেশে এই প্রথম এমন গল্পে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। তিনি আদর্শিকভাবে বামপন্থি রাজনীতি করেন। তবে তার রাজনীতির মূল উদ্দেশ্য মানুষ। এই মানুষটির জীবন ও তার ত্যাগী রাজনৈতিক জীবনই চলচ্চিত্রটির মূল উপজীব্য। আর চলচ্চিত্রটি শেষ হবে মুক্তিযুদ্ধে এসে। সেই ভাবনা থেকে চলচ্চিত্রটি নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। তানভীর মোকাম্মেলের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা নিঃসন্দেহে দারুণ। ১০ তারিখে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে প্রিমিয়ার হবে।

সাধারণত সিনেমা হলে প্রিমিয়ার হয়। সেক্ষেত্রে শিল্পকলায় প্রিমিয়ারের পরিকল্পনার কারণ?

এটি পরিচালকের চাওয়া। কারণ যেহেতু শিল্পকলা হচ্ছে শিল্পমনা মানুষদের আনাগোনা। শিল্পের চর্চা হয় সেখানে। সেই পরিকল্পনা থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর দেখুন এখন আর মাধ্যম মুখ্য থাকছে না। দর্শকেরা একাট্টা হয়ে ছবি দেখবে এটাই বড় বিষয়। নয়তো ওটিটি প্লাটফর্ম আর অ্যাপসের যুগে তো প্রত্যেক দর্শক আলাদা। তাই আমি মনে করি শিল্পকলায় প্রিমিয়ারের সিদ্ধান্তটাই সঠিক।

একুশে টিভির অনুষ্ঠান বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন। এর পাশাপাশি কাজ করাটা নিজের অভিনয়কে খানিক ঠকানো হয় কীনা ?

আমি মনে করি তা হয় না। হ্যাঁ আমি যদি চাল ডালের আড়তের ম্যানেজার হতাম। মানে একেবারেই ট্র্যাকের বাইরে অন্য কোনো পেশায় জড়াতাম, তখন সেটা ঠকানো হতো। আমি আমার পেশা নেশা দুটোর চর্চাতেই এই সংস্কৃতি জগেকই রেখেছি। আর নাটক বা চলচ্চিত্র নিয়ে আগের মত ব্যস্ত থাকা যায় না। এখন এত মাধ্যমের ভীড়ে কোয়ালিটি কাজটা খুব জরুরি। তাই বর্তমানে মূল ব্যস্ততা এখানে। এছাড়া ভালো গল্পের নাটক-চলচ্চিত্র হলে কাজ করবো। সেই অপেক্ষায় আছি।

এখনকার নাটক নিয়ে অনেকের অভিযোগ থাকে, সস্তা গল্প। অল্প চরিত্রের নাটক না হয়ে হয়ে যাচ্ছে কন্টেন্ট। এ প্রসঙ্গে আপনি কী বলবেন?

সময়ের সঙ্গে অনেক কিছুরই পরিবর্তন হয়। তাই পরিবর্তনের ছোঁয়া তো থাকবেই। তবে এখন চর্চার জায়গাটায় কমতি মনে হয়। আমরা এক সময় যেই ডেডিকেশন নিয়ে কাজ করতাম সেটি এখন দেখিনা। সবাই এখন শিল্পের চেয়ে বাণিজ্যের দিকে বেশি ঝুঁকছে। প্রতিটি কাজ কীভাবে নান্দনিক হবে সেই চেষ্টার চেয়ে অর্থ কীভাবে আসবে সেই চেষ্টা বেশি থাকে।

ইত্তেফাক/এসআই