মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নাব্যতা সংকটে রাজবাড়ীর জৌকুড়া-নাজিরগঞ্জ নৌপথে ফেরী চলাচল বন্ধ

আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০২১, ১৫:২৯

পদ্মা নদীতে নাব্যতা সংকটের কারণে রাজবাড়ী সদর উপজেলার চন্দনী ইউনিয়নের জৌকুড়া-পাবনার নাজিরগঞ্জ নৌরুটে ফেরী চলাচল সাময়িক ভাবে বন্ধ রয়েছে। গত (সোমবার) ৮ নভেম্বর থেকে ঘাট নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ রাজবাড়ীর সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগ নাব্যতা সংকটের কারণে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে নৌরুটে ফেরী চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেন। এতে করে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ যাত্রী, পরিবহন ও পণ্যবাহী যানবাহনের চালকরা।

জানা গেছে, দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলার সঙ্গে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার যাতায়াতের সহজ পথ হলো এই নৌরুট। এই নৌরুট ব্যবহার করলে অন্তত ১৮০ কিলোমিটার পথ সাশ্রয় হয় যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী যানবাহন চালকদের। নৌরুট দিয়ে প্রতিদিন রাজবাড়ী, ফরিদপুর, মাদারীপুর, পিরোজপুর, বরিশাল, গোপালগঞ্জসহ আশপাশের জেলাগুলোর সকল পরিবহন ও যানবাহন পাবনা, সিরাজগঞ্জ, রাজশাহী, রংপুর, নাটোরসহ বিভিন্ন জেলায় যাতায়াত করে। 

সরজমিনে দেখা গেছে, জৌকুরা ঘাট এলাকা থেকে প্রায় ১ কি.মি অদূরে পদ্মা নদীতে জেগে উঠা চরে ২টি ফেরী ও ১টি প্ল্যাটুন অবস্থান করছে। যানবাহন ফেরীর প্ল্যাটুনে উঠার র‌্যামটি প্ল্যাটুনের উপরে উঠিয়ে রাখা হয়েছে। এছাড়া মূল সড়ক থেকে ঘাটে পৌঁছানোর অ্যাপ্রোজ সড়কটি জুড়ে স্থানীয় এক বালু ব্যবসায়ী বালি তুলে রেখেছেন। এতে করে সাধারণ যাত্রীদের চলাচলে ব্যাঘাত ঘটছে। অপর দিকে জৌকুরা ঘাট প্রান্ত থেকে ইঞ্জিন চালিত ট্রলার যোগে জীবনে ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেল চালক, আরোহী ও সাধারণ যাত্রীরা পারাপার হচ্ছেন। 

জৌকুড়া-নাজিরগঞ্জ নৌপথে ফেরী চলাচল বন্ধ থাকায় ইঞ্জিন চালিত ট্রলার যোগে জীবনে ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেল চালক, আরোহী ও সাধারণ যাত্রীরা পারাপার হচ্ছেন

ট্রলারে নদী পাড় হওয়া মোটরসাইকেল চালক মিজানুর রহমান বলেন, আমি একটি সরকারি দপ্তরে চাকুরী করি। নৌরুটে ফেরী বন্ধ থাকায় স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে নিজ বাড়ী পাবনাতে যাওয়ার জন্য বর্তমানে একমাত্র উপায় ট্রলার। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রলারে চলাফেরা করতে গেলে নদীতে ট্রলার খুব দুলতে থাকে। উপায়হীন হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমার মতো শত শত যাত্রী ও চালক নদী পারাপার হচ্ছেন।

জৌকুরা ঘাটের ইজারাদার মোস্তাফিজুর রহমান শরীফ বলেন, পদ্মা নদীতে চর জেগে উঠায় নৌরুটে চলাচলরত ফেরীগুলো স্বাভাবিক ভাবে চলাচল করতে ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া নদীর পানি আর একটু না করলে সঠিক স্থানে ফেরীর প্ল্যাটুন ও র‌্যাম স্থাপন করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে করেই নৌরুটে ফেরী চলাচল বন্ধ রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই নৌরুট ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় প্রায় ১৮০ কিলোমিটার ঘুরে কুষ্টিয়া হয়ে পাবনা সহ অন্যান্য জেলায় যাতায়াত করতে হচ্ছে । 

রাজবাড়ী সওজ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহরিয়ার শরীফ খান বলেন, পদ্মা নদীতে নাব্যতা সংকটের কারণেই সাময়িক ভাবে জৌকুরা-নাজিরগঞ্জ নৌরুটি বন্ধ রয়েছে। ফেরী ঘাটটি চলাচলের উপযোগী স্থানে স্থানান্তর কাজ সম্পাদনের লক্ষ্যে গত ৮ নভেম্বর হতে পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত জৌকুড়া-নাজিরগঞ্জ ফেরী চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে। জৌকুড়া প্রান্তে পদ্মা নদীর পানি আরও হ্রাস পাওয়ার পর উপযুক্ত স্থানে ঘাট স্থানান্তরের পরপরই ফেরী ঘাটটি পুনরায় চালু করা হবে। 

ইত্তেফাক/ ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সুজানগরে নাব্য সংকটে ফেরি চলাচল বন্ধ, জনসাধারণের দুর্ভোগ

ঈদ শেষে দৌলতদিয়া ঘাটে বাড়ছে কর্মমূখী মানুষের চাপ

বিশেষ সংবাদ

এবার ঈদে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া থাকবে না ভোগান্তি, চলবে ২১ ফেরি

ফের শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি চলাচল শুরু

তীব্র স্রোত: শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

জৌকুড়া-নাজিরগঞ্জ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে আজ থেকে ফেরিভাড়া বাড়লো