বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

টাঙ্গাইল-৭ উপনির্বাচন: আপিলে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ

আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৩১

টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর শূন্য আসনের উপনির্বাচনে নির্বাচন কমিশনে আপিলের পর প্রার্থীতা ফিরে পেলেন আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী খান আহমেদ শুভ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. নুরুল ইসলাম নুরু। রবিবার (২৬ ডিসেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে ৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি দুপুরে তাদের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয়। 

এদিকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী খান আহমেদ শুভর বাতিলকৃত মনোনয়নপত্র আপিলে নির্বাচন কমিশন বৈধ ঘোষণার খবরে বিকেলে মির্জাপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা খণ্ড খণ্ড আনন্দ মিছিল বের করে। 

টাঙ্গাইল জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর শূন্য আসনের উপনির্বাচনে এমপি পদে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। রিটার্নিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র দাখিলে ঋণ খেলাপির দায়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য ও টাঙ্গাইল জেলা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাট্রিজের সভাপতি এবং এফবিসিসিআইসির পরিচালক খান আহমেদ শুভর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন। একই দিন ভোটার আইডি কার্ডে নামের সঙ্গে মিল না থাকায় বৈরাবরি পার্টি (অনিবন্ধিত) এবং পার্টির যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ আলমগীর হোসেন, এক শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষরের সঙ্গে স্বাক্ষর গড়মিল থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. নুরুল ইসলাম নুরু এবং আরজু মিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন। 

প্রার্থীতা ফিরে পেতে খান আহমেদ শুভ ও নুরুল ইসলাম নুরু নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন। আপিলে শুনানি শেষে রবিবার তাদের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।

এদিকে ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে তিনজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা হয়েছে। বৈধ প্রার্থীরা হলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মো. জহিরুল ইসলাম জহির, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি ও পার্টির মনোনীত প্রার্থী কমরেড মো. গোলাম নওজব পাওয়ার চৌধুরী এবং বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির প্রার্থী শ্রী মতি রুপা রায় চৌধুরী। 

এ ব্যাপারে মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল বলেন, দলীয় প্রার্থীর মনোনয়নপত্রে সামান্য ভুলের কারণে রিটার্নিং অফিসার বাতিল ঘোষণা করেছিলেন। আমরা এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন ও হাইকোর্টে আপিল করেছিলাম। আপিলে দলের প্রার্থী খান আহমেদ শুভ তার মনোনয়নপত্র বৈধ হিসেবে ফিরে পেয়েছেন।

টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের এমপি ও সড়ক পরিবহন এবং সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মো. একাব্বর হোসেন গত ১৬ নভেম্বর অসুস্থতার কারণে মারা যান। তিনি মারা যাওয়ার পর আসনটি শূন্য হয়ে যায়। ২৫ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন শূন্য আসনটির উপনির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী ১৫ ডিসেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। সোমবার (২০ ডিসেম্বর) ছিল যাচাই বাছাই। ২৭ ডিসেম্বর প্রত্যাহার এবং ২৯ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ। ১৬ জানুয়ারি ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর উপনির্বাচনে প্রথম বারের মত ভোট গ্রহণ হবে ইভিএম পদ্ধতিতে।

 

 

 

ইত্তেফাক/এসআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ২০ কিলোমিটার যানজট

মির্জাপুরে ক্ষতিপূরণ না দিয়েই উচ্ছেদের অভিযোগ ৩৩ পরিবারের

নিজের বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেই বিনা বেতনে পড়ালেখার সুযোগ

মির্জাপুরে বিক্রির জন্য প্রস্তুত ৫ হাজার কোরবানির পশু 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

জরাজীর্ণ ক্রীড়া সংস্থার ভবন যেন মরণ ফাঁদ

মির্জাপুরে কাঁঠালের ফলন ও দাম ভালো

মির্জাপুরের কাঁঠাল যাচ্ছে অন্য জেলায়, ভালো দাম পাচ্ছেন কৃষকরা 

৯ কিলোমিটার রাস্তাই যেন মরণ ফাঁদ