শনিবার, ২১ মে ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

হঠাৎ কেন মুরগির দাম বাড়লো

আপডেট : ০১ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৩৩

রাজধানীসহ সারাদেশে হঠাৎ ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়ে গেছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, থার্টিফার্স্ট উপলক্ষে চাহিদা বেশি থাকায় দাম বেড়েছে। 

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, পলাশী বাজার, হাতিরপুলসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, খুচরায় ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি। সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৭০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি। অথচ এক সপ্তাহ আগে ব্রয়লার মুরগি দাম ছিল ১৭০ টাকা থেকে ১৮০ টাকা কেজি।

পলাশীর একটি সবজির দোকান।

শনিবার রাজধানীর হাতিরপুল বাজারের সবুজ পোলট্রি ফার্মের মালিক মো. আবুল বাজার জানান, খ্রিস্টীয় নববর্ষে ফার্মের মুরগির চাহিদা বেশি ছিল। চাহিদার তুলনায় জোগান কম থাকায় হঠাৎ দাম বেড়ে যায়। তারপরও অনেকে বাজারে এসে মুরগি পায়নি। এক সপ্তাহ আগে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা।

লালবাগ কেল্লার মোড় বাজারে মুরগি কিনতে আসা মো. পারভেজ উদ্দিন জানান, নববর্ষ উপলক্ষে ছেলে মুরগি ফ্রাই খেতে চেয়েছে। বাজারে মুরগি কিনতে এসে দেখি দাম কেজিতে ৩০ টাকা বেড়েছে। বাধ্য হয়ে বেশি দামেই মুরগি কিনতে হয়েছে।  

লালবাগ কেল্লার মোড়ের একটি মুরগির দোকান।

তবে শীলকালীন সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজারে করলা ৫০ টাকা, সিম ৫০ টাকা, মরিচ ৪০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, নতুন আলু ৩০ টাকা, পেঁপে ৪৫ টাকা, কচুর ছড়া ৪০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, মুলা ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ফুলকপি প্রতি পিস আকার-ভেদে ৩০-৪০ টাকা, পাতা কপি আকার ৩৫-৪০ টাকা বিক্রি করছি।  তবে বাজারভেদে প্রতিটি সবজির দামে ১০ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত পার্থক্য রয়েছে।

পলাশী বাজারের সবজি ব্যবসায়ী মো. হারুন জানান, এখন বাজারে সবজির সরবরাহ বেড়েছে।প্রায় সব ধরনের সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বেশকিছু সবজি ক্রেতারা ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে কিনতে পারছেন। 



ইত্তেফাক/ইউবি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বিশেষ সংবাদ

তেলের ভোগান্তির মধ্যেই বাড়ছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

বিশেষ সংবাদ

বাড়তি দাম নির্ধারণের জন্যই কারসাজি

বিশেষ সংবাদ

সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি ভোক্তারা

ঈদের আগে হঠাৎ সয়াবিন তেল ‘উধাও’

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

মূল্যস্ফীতির হার ১৬ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ

মূল্যবৃদ্ধির প্রভাবে সামাজিক অস্থিরতা বৃদ্ধির আশঙ্কা

শুক্রবার থেকে রশিদ ছাড়া ভোজ্যতেল কেনাবেচা বন্ধ

খাদ্যপণ্যে মূল্যস্ফীতির হার আরেক দফা বেড়েছে