বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

করোনায় এক দিনে সংক্রমিত ১১ হাজার ৪৩৪

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় সংক্রমণে ঊর্ধ্বগতি

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২২, ০০:১৯

স্বাস্থ্যবিধি না মানার পরিপ্রেক্ষিতে দেশে করোনা সংক্রমণ ব্যাপক হারে বাড়ছে। করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের বিস্তারের মধ্যে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আর শনাক্তের হারে বাংলাদেশ ফিরে গেল ২৫ সপ্তাহ আগের পর্যায়ে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সোয়া ৪০ হাজারের বেশি পরীক্ষা করে ১১ হাজার ৪৩৪ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে; এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। 

এক দিনে এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল সর্বশেষ গত বছরের ৯ আগস্ট, সেদিন ১১ হাজার ৪৬৩ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলেন, করোনার লাগামহীন ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণকে পাত্তাই দিচ্ছেন না কেউ। সরকারঘোষিত ১১ দফা বিধিনিষেধ যেন শুধু কাগজেই আছে, বাস্তবে নেই। অনেকে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। অধিকাংশই মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে যাচ্ছেন। সাবান দিয়ে হাত ধোয়া কার্যক্রম প্রায় বন্ধ। প্রায় কেউই সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করে চলছেন না। রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ হচ্ছে। পর্যটনকেন্দ্রে মানুষের উপচে পড়া ভিড়। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালের বেড এক-তৃতীয়াংশ ইতিমধ্যে ভরে গেছে। স্বাস্থ্যবিধি না মানার পরিপ্রেক্ষিতে এভাবে  সংক্রমণ বাড়তে থাকলে ঢাকা শহরের সব হাসপাতালেই আর বেড পাওয়া যাবে না।

বৃহস্পতিবার ১০ হাজার ৮৮৮ জন নতুন রোগী শনাক্তের কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেই হিসাবে গত এক দিনে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৪৪৫ জন বা ৪ দশমিক ১৮ শতাংশ। জানুয়ারির প্রথম দিনও শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ৪০০-র নিচে, ৬ জানুয়ারি তা হাজার ছাড়ায়, ১৬ জানুয়ারি পেরিয়ে যায় ৫ হাজারের ঘর, এরপর মাত্র চার দিন পর ২০ জানুয়ারি তা দ্বিগুণ হয়। শুক্রবার নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার আরো বেড়ে ২৮ দশমিক ৪৯ শতাংশ হয়েছে, যা গত বছরের ৪ আগস্টের পর সর্বোচ্চ। গত ৪ আগস্ট সনাক্তের হার ছিল ২৯ দশমিক ৪০ শতাংশ। ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের দাপটে বাংলাদেশে দিনে রোগী শনাক্তের হার ৩২ শতাংশে উঠেছিল ২০২১ সালের জুলাই মাসে। তবে ডিসেম্বরে তা ২ শতাংশের নিচে নেমেছিল। জানুয়ারির শুরু থেকেই সংক্রমণের হার হু হু করে বাড়ছে। মহামারির মধ্যে সার্বিক শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ৮২ শতাংশ। আর মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

দেশে মোট শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ লাখ ৬৪ হাজার ৭১৫ জনে। তাদের মধ্যে ২৮ হাজার ১৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত এক দিনে দেশে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৭৫২ জন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত ১৫ লাখ ৫৫ হাজার ৫৯৭ জন সুস্থ্য হয়ে উঠলেন। এই হিসাবে দেশে এখন সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা ৮০ হাজার ৯২৬ জন। অর্থাৎ এই সংখ্যক রোগী নিশ্চিতভাবে সংক্রমিত অবস্থায় রয়েছে। আগের দিন এই সংখ্যা ছিল ৭০ হাজার ১৫৭ জন। ১৫ জানুয়ারি ছিল ৩১ হাজার ৭৫৩ জন। অর্থাৎ মাত্র এক সপ্তাহে সক্রিয় রোগী বেড়েছে দ্বিগুণেরও বেশি। 

গত এক দিনে শনাক্ত রোগীদের মধ্যে ৭ হাজার ৯৬১ জনই ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা, যা মোট আক্রান্তের প্রায় ৬৯ শতাংশের বেশি। এ বিভাগের মধ্যে ঢাকা জেলায় ৭ হাজার ২৯৬ জন, গাজীপুরে ১১৪ জন, নারায়ণগঞ্জে ১৮৩ জনের কোভিড শনাক্ত হয়েছে। চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যে চট্টগ্রাম জেলায় ১ হাজার ১৭ জন, কক্সবাজারে ১২০ জন, কুমিল্লায় ১০৪ জন; রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী জেলায় ১৬০ জন, বগুড়ায় ১১১ জন; খুলনা বিভাগের মধ্যে খুলনা জেলায় ১২৬ জন, যশোরে ১২৯ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া সিলেট জেলায় ২৯৯ জন এবং ময়মনসিংহে ১৬১ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে গত এক দিনে। গত এক দিনে যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের সাত জন পুরুষ, পাঁচ জন নারী। তাদের মধ্যে ছয় জন ছিলেন ঢাকা বিভাগের। দুই জন সিলেট বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। 

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সরকারি বিদেশ সফর থামেনি, চলছে কৌশলে

খালেদা জিয়াকে পদ্মা সেতুতে তুলে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী

হজের নিবন্ধনের সময় বাড়লো

অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ নিয়ে সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

‘বার বার ষড়যন্ত্রের পরও গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনেছে আওয়ামী লীগ’

দেশে আরও ২২ জনের করোনা শনাক্ত

সেনাপ্রধানের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের রয়েল কলেজ অব ডিফেন্স স্টাডিজ প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

সংসদীয় কমিটির ‘দুস্থ কোটা’ ও হজযাত্রায় বাড়তি খরচ