শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের চীনে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার দাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ২০:৫৯

করোনার কারণে দেশে চলে আসা ৫ হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে অবিলম্বে চীনে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে এ দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতারা।  

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক মো. আল মামুনের সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সহ-সভাপতি শাহীন সিকদার। আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ-সভাপতি রোমান হোসাইন, ঢাবি শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম মাহিম, ভাস্কর শিল্পী রাশা, চীন থেকে দেশে ফিরে আসা ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান, হাসিব, কামরুল হাসান প্রমুখ।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহিন সিকদার বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের অধিকার আদায়ের আন্দোলন-সংগ্রামের পাশাপাশি সমাজ ও রাষ্ট্রের সব অনিয়মের বিরুদ্ধে রাজপথে প্রতিবাদ করে আসছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। এর ধারাবাহিকতায় করোনার সময় চীন থেকে দেশে ফিরে আসা ৫ হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে অবিলম্বে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য চীনের প্রতি দাবি জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।  

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ।

সংগঠনের ঢাবি শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের প্রতি চীন সরকারের বৈষম্যমূলক নীতির বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। চীনে প্রায় পাঁচ হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থী বিভিন্ন বিষয়ে অধ্যয়ন করছেন। করোনা ভাইরাসের সময় তাদের দেশে ফিরিয়ে দেওয়া হলেও আজও তাদের চীনে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি।  

ভাস্কর শিল্পী রাশা বলেন, বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদেরকে চীনে যাওয়ার অনুমতি না দিলে প্রয়োজনে চীন দূতাবাস ঘেরাও করা হবে।

চীন থেকে ফিরে আসা ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী কামরুল হাসান বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশের শিক্ষার্থীরা চীনে যেতে পারলেও আমরা কেন যেতে পারছি না। চীন সরকার আমাদের সঙ্গে অন্যায় আচরণ করছে। আমাদের ভবিষ্যত ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ।

আরেক ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান বলেন, পাকিস্তানসহ অন্যান্য দেশের শিক্ষার্থীদের চীনে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশিদের নেওয়া হচ্ছে না। চীন সরকার আমাদের সঙ্গে পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করছে।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, বিশ্বের প্রায় সব দেশে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা যেতে পারলেও প্রায় দুই বছর ধরে চীন সরকার অন্যায়ভাবে আমাদের হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে চীনে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে না, যা কূটনৈতিক শিষ্টাচারের চরম লঙ্ঘন। এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নীরব ভূমিকা পালন করছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের প্রতি চীনের বৈষম্যমূলক আচরণ কখনোই মেনে নেওয়া হবে না। প্রয়োজনে  চীন ফেরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও চীন দূতাবাস ঘেরাওসহ আরও কঠোর পালন করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

ইত্তেফাক/ইউবি