সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ফ্রান্সের সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা অচলাবস্থায় ফেলবে মালিকে

আফ্রিকান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ম্যাকি স্যালের মন্তব্য 

আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৩:৪৩

ফ্রান্স এবং আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলে জঙ্গিবিরোধী অভিযান চালাতে গঠিত আন্তর্জাতিক জোটে থাকা প্যারিসের মিত্ররা মালি থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করে নিতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

আফ্রিকার দেশটিতে ক্রিয়াশীল ইসলামি জঙ্গিদের দমনে প্রায় এক দশক ধরে সেখানে ফ্রান্স ও অন্যান্য দেশের সেনারা ছিল। এদিকে ইউরোপের সৈন্য প্রত্যাহার মালিকে অচলাবস্থায় ফেলবে বলে মন্তব্য করেছেন সেনেগালের প্রেসিডেন্ট এবং আফ্রিকান ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ম্যাকি স্যাল।

মালি থেকে সরিয়ে নেওয়া এই সেনাদের সাহেলের অন্য দেশগুলোতে মোতায়েন করা হবে। মালির নতুন সামরিক জান্তার সঙ্গে বিরোধের কারণে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক খারাপ হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ম্যাক্রোঁ। ‘মালির কর্তৃপক্ষ যাদের সঙ্গে আমরা লক্ষ্য ও কৌশল ভাগাভাগি করে নিতে পারছি না, তাদের সঙ্গে সামরিকভাবেও জড়াতে পারি না,’ বৃহস্পতিবার প্যারিসে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন তিনি।

সেনা প্রত্যাহার ব্যর্থতার স্বীকারোক্তি এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করে ফরাসি এই প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ঐ অঞ্চলে ইসলামি জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় ফ্রান্স এখনো দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। মালি থেকে প্রত্যাহার করা কিছু সেনাকে নাইজার জায়গা দিতে রাজি হয়েছে বলেও জানান তিনি। ‘সাহেলের ভালোর জন্য আন্তর্জাতিক সংহতিতে সমন্বয় সাধনের ভূমিকা পালন করছে ফ্রান্স। এই সমন্বয় সাধনের কাজ অব্যাহত রাখব আমরা,’ বলেছেন তিনি।

মালি থেকে সৈন্য প্রত্যাহারে চার থেকে ছয় মাস সময় লাগতে পারে; এ সময় সাহেলে ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে তুলনামূলক কম অভিযান হতে পারে, সংবাদ সম্মেলনে ম্যাক্রোঁ এমনটা বলেন।

ইউরোপের সৈন্য প্রত্যাহার মালিকে অচলাবস্থায় ফেলবে বলে মন্তব্য করেছেন সেনেগালের প্রেসিডেন্ট ম্যাকি স্যাল। আফ্রিকান ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আরো বলেন, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের টার্গেটে পরিণত হয়েছে আফ্রিকা। তিনি বলেন, আফগানিস্তানে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার সময়, একটি বহুজাতি মিশনে ৪২টি দেশ থেকে ১ লাখের বেশি সৈন্য পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু যখন সাহেলের কথা আসে, তখন পরিস্থিতি একেবারেই আলাদা।

ইত্তেফাক/এএএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ম্যাক্রোঁর প্রস্তাবে দুই বিরোধী দলের 'না'

ম্যাক্রোঁর জোট জিততে পারলো না

ম্যাক্রোঁর দলকে কড়া টক্কর বামপন্থিদের

ম্যাক্রোঁর দলকে কড়া টক্কর বামপন্থিদের

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ফ্রান্সের পার্লামেন্ট নির্বাচনে ম্যাক্রোঁর সংখ্যাগরিষ্ঠতা হুমকিতে 

ফ্রান্সে ৫১ জন মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত

জার্মান-ফ্রান্সকে পুতিনের 'হুঁশিয়ারি'  

মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, চাপে মাক্রোঁ