বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

২১শে ফেব্রুয়ারিকে ‘লন্ডন বহুভাষিক দিবস’ ঘোষণার আহ্বান 

আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৯:৩০

অমর ২১শে ফেব্রুয়ারিকে ‘লন্ডন বহুভাষিক দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করার জন্য লন্ডনের মেয়রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম। 

সোমবার লন্ডনের এক হোটেলে বাংলাদেশ হাইকমিশন, লন্ডন ও যুক্তরাজ্য ইউনেস্কো কমিশনের যৌথ উদ্যোগে ‘ইউজিং টেকনোলজি ফর মাল্টিলিংগুয়াল লার্নিং: চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড অপরচুনিটিজ’ প্রতিপাদ্যের ওপর ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান তিনি।

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম বলেন, ‘বৃহত্তর লন্ডনের সাংস্কৃতিক ল্যান্ডস্কেপকে সমৃদ্ধ করেছে এমন ৩০০ টিরও বেশি কমিউনিটির মধ্যে বহুভাষিকতা ও বৃহত্তর আন্তঃসাংস্কৃতিক সম্প্রীতির জন্য ২১শে ফেব্রুয়ারিকে লন্ডনের বহুভাষিক দিবস হিসাবে ঘোষণা করার জন্য আমি লন্ডনের মেয়রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছি।’

এছাড়া বৃহত্তর লন্ডনে বাংলা তৃতীয় সর্বাধিক কথ্য ভাষা হওয়ায় ব্রিটিশ-বাংলাদেশি নতুন প্রজন্মের জন্য বাংলা ভাষা শেখার সুবিধা প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলে জানান হাইকমিশনার। 

জাতীয় পতাকা উত্তোলন করছেন সাইদা মুনা তাসনীম।

ভাষা শহীদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে হাইকমিশনার বলেন, ‘বিবিসির তথ্য অনুযায়ী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই প্রথম বাঙালি যিনি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বাংলা ভাষায় বক্তৃতা দিয়ে বাংলাকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে গেছেন।’ 

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন-কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারনেস প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড, ইউনেস্কোতে যুক্তরাজ্য ও উত্তর আয়ারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত মিস লরা ডেভিস, তুরস্কের রাষ্ট্রদূত উমিত ইয়ালসিন, উত্তর মেসিডোনিয়া প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রদূত মিসেস আলেকসান্দ্রা মিওভস্কা, কিউবার রাষ্ট্রদূত বারবারা মন্টালভো অ্যালভারেজ, জর্জিয়ার রাষ্ট্রদূত সোফি কাতসারাভা, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূত সরোজা সিরিসেনা, ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত ড. ডেসরা পারসায়া, ব্রিটিশ ফরেন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অফিসের ডেপুটি ডিরেক্টর মায়া শিভাগনানাম, লন্ডনের নেহেরু সেন্টারের পরিচালক আমিশ ত্রিপাঠী, ব্রিটিশ কাউন্সিলের পরিচালক মাইকেল কনোলি, মহান একুশের অমর গানের রচয়িতা ও বিশিষ্ট কলামিস্ট আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী, বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ অ্যাকশন কমিটি যুক্তরাজ্যের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ ও যুক্তরাজ্য ন্যাশনাল কমিশন ফর ইউনেস্কোর প্রধান নির্বাহী জেমস ব্রিজ।

ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে হাইকমিশনার মিশনের কর্মকর্তা ও অতিথিদের নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে স্থাপিত একটি প্রতীকী শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। এরপর ভাষা শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। 

দিবসের শুরুতে হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম দূতাবাসে জাতীয় সঙ্গীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে মহান শহীদ দিবস ও ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালনের সূচনা করেন। এরপর দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শুনানো হয়।

ইত্তেফাক/এএএম