বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

১০ রোজার পর বেগুনে স্বস্তি

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২২, ১৬:৫২

ইফতারির প্রধান উপকরণ মুড়ি, বেগুনি, ছোলা, আলুর চপ ও পিঁয়াজু। কিন্তু রোজার শুরুতে বেগুনের দাম ঊর্ধ্বগতি থাকার কারণে ইফতারিতে বেগুনি দেওয়ার সামর্থ্য অনেকের ছিল না। তবে ১০ রমজানের পর বেগুনের দাম কিছুটা কমেছে। সেই সঙ্গে কমেছে ডিম ও মুরগি দাম। শুক্রবার (১৫) এপ্রিল রাজশাহীর কাওরান বাজার, হাতিরপুল কাচা বাজার ও পলাশী বাজার ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

পলাশী বাজারে গিয়ে দেখা যায়- বেগুন ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। রোজার শুরুতে এই বাজারে প্রতি কেজি বেগুন ১২০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছিল। এছাড়া করলা ৫০ টাকা, আলু ২০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, সিম ৪০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  

পলাশী বাজারের সবজি বিক্রেতা সামসুল আলম জানান, রোজায় অন্যান্য সবজির চেয়ে বেগুনের চাহিদা বেশি থাকে। রোজার শুরুতে প্রতি কেজি বেগুন ১২০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। রোজার প্রথম সপ্তাহ প্রায় এই দামে বিক্রি হয়েছে। তবে ১০ রোজার পর দাম কিছুটা কমেছে।

পলাশীর একটি সবজির দোকান

দাম কমার কারণ হিসেবে তিনি জানান, এলাকার থেকে বেগুনের সরবরাহ বেড়েছে। এছাড়া অনেকে পরিবারের সদস্যদের গ্রামে পাঠিয়ে দিচ্ছে।

হাতিরপুল বাজারে সবজি কিনতে আসেন বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা ইশরাত খুশি। তিনি জানান, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটিতে বাজার করি। গত সপ্তাহের চেয়ে এ সপ্তাহে বেগুনের দাম কিছুটা কমেছে। তবে অন্যান্য সবজির দাম একই রয়েছে।

সপ্তাহের শেষে ব্রয়লার মুরগির ডিম প্রতি ডজন ১০ টাকা কমেছে। গত সপ্তাহে প্রতি ডজন ডিম ১১০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এছাড়া পোল্ট্রি মুরগি ১৬০ টাকা ও সোনালী মুরগি ২৫০ থেকে ২৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

পলাশীর মাছের বাজার।

পলাশী বাজারের মুরগি বিক্রেতা মোহম্মদ রাব্বি জানান, পোল্ট্রি মুরগির দাম কেজিতে ১০ টাকা কমেছে। এছাড়া সোনালী মুরগির দামও কম।

এদিকে হাতিরপুল ও পলাশী বাজারের চেয়ে কাওরান বাজারে দেখা গেলো- সব সবজির দাম  কেজিতে ১০ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত কম। এর কারণ হিসেবে কাওরান বাজারের সবজি বিক্রেতা আখতার হোসেন জানান, আমাদের পরিবহন খরচ নেই। আড়ত থেকে কিনে এখানেই বিক্রি করি। অনেকে পাল্লা হিসেবে (এক সঙ্গে ৫ কেজি) কিনলে অনেক সময় কেনা দামের চেয়ে সামান্য লাভ রেখেই বিক্রি করি।

ইত্তেফাক/ইউবি