শনিবার, ২১ মে ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আজও রাজধানীতে ফিরছে কর্মজীবী মানুষ

আপডেট : ০৭ মে ২০২২, ১৩:৩৬

ঈদ শেষে আগামীকাল রবিবার থেকে খুলবে সব অফিস। সে হিসেবে ঈদের ছুটির শেষদিন আজ। তাই আজও রাজধানীতে ফিরছেন কর্মজীবী মানুষ। এতে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে। মূলত শুক্রবার রাত থেকে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। তবে স্বস্তিতেই রাজধানীতে ফিরছেন ট্রেন ও লঞ্চ যাত্রীরা। 

ইত্তেফাকের গোয়ালন্দ প্রতিনিধি জানান, হাজার হাজার মানুষের চাপ বেড়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে। শনিবার সকাল থেকেই ফেরি ও লঞ্চগুলোতে উপচেপড়া ভিড় ঠেলেই পারাপার হচ্ছেন এসব কর্মমুখী সাধারণ মানুষ। দীর্ঘ যানজট ও রোদ-গরমের মধ্যে বাধ্য হয়েই যাচ্ছেন গন্তব্যে এসব মানুষ। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে গোয়ালন্দ বাজার পর্যন্ত ৯ কিলোমিটার জুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে। ফলে প্রায় ৮-৯ ঘণ্টা অপেক্ষা করে ফেরির নাগাল পেতে হচ্ছে যানবাহনকে।

তবে বরাবরের মত যানবাহনগুলোতে অতিরিক্ত কয়েকগুণ ভাড়া নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে।  ফেরিঘাটে ২৫ টাকা নির্ধারিত মূল্যের টিকেট জোরপূর্বক ৩০ টাকা করে বিক্রি করায় অভিযোগে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের হস্তক্ষেপে ৬ জনকে আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত জরিমানাও করেছে। তারপরও বাড়তি টাকা নেওয়ার অভিযোগ রয়েই গেছে। বর্তমানে ৪টি ফেরিঘাট দিয়ে ১৯টি ফেরি এবং ২২টি লঞ্চ দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। লঞ্চগুলোকে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে ঝুঁকি নিয়ে চলতে দেখা গেছে।

শিমুলিয়া ফেরিঘাট এলাকা।

এদিকে মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় যানবাহনের চাপ গত কয়েক দিনের তুলনায় স্বাভাবিক রয়েছে। আজ শনিবার সকালে যানবাহনের চাপ থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমতে শুরু করেছে। তবে, লঞ্চঘাট এলাকায় দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ বেড়েছে কয়েকগুণ। শিমুলিয়া ফেরিঘাট এলাকায় পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক যানবাহন। বাংলাবাজার থেকে লঞ্চে করে আসা যাত্রীদের গণপরিবহণের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আর বাসে করে ঢাকায় পাড়ি দিতে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার-মাঝিকান্দি নৌরুটে ১০টি ফেরি দিয়ে ২৪ ঘণ্টা যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) ফয়সাল আহমেদ। অপরদিকে, ১৫৫টি স্পিডবোট ও ৮৫টি লঞ্চ দিয়ে যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) শিমুলিয়া ঘাটের বন্দর কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন।

কমলাপুর রেল স্টেশনে রাজধানীমুখী মানুষের ঢল।

এদিকে রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশন ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি আন্তঃনগর ট্রেন থেকে বহু মানুষ প্ল্যাটফরমে নামছেন। সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে কমলাপুর রেল স্টেশনের ৫ নম্বর প্ল্যাটফরমে এসে পৌঁছায় তারাকান্দি থেকে ছেড়ে আসা যমুনা এক্সপ্রেস। ট্রেনের প্রায় ১৪/১৫টি বগি থেকে ১০ মিনিট ধরে শুধু যাত্রীই নামেন।

ঐ ট্রেনের যাত্রী হয়ে আসা রাজধানীর একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির কর্মী ফারহানা ইয়াসমিন বলেন, বাবা-মা ছেড়ে আসাটা কষ্টকর। কিন্তু কাজের সুবাদে কিছু করার নেই, বাধ্য হয়ে আসতে হয়। যাওয়ার সময় ভ্রমণ একটু কষ্টদায়ক হলেও, ফেরার ভ্রমণটা ছিল অনেকটা আরামদায়ক।

ঐ ট্রেনে সরিষাবাড়ী থেকে আসা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অনেক কষ্ট হলেও ঈদের এক দিন আগে বাড়ি গিয়েছিলাম। কিন্তু বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি। কোনো উপায় নেই, তাই চলে আসতে হলো পরিবার নিয়ে। আজ থেকে অফিস শুরু। ফিরতি পথে ট্রেনের টিকিট পেতে এবং আসতে কোনো ভোগান্তিত হয়নি। খুব সুন্দরভাবে আসতে পেরেছি। আরো কিছুদিন আব্বা-আম্মার সঙ্গে থাকতে পারলে বেশি ভালো লাগত।

বেলা ১১টায় রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশনের ৪ নম্বর প্ল্যাটফরমে সিরাজগঞ্জ থেকে এসে পৌঁছায় সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস। ঐ ট্রেন দিয়ে প্রায় দেড় হাজারের বেশি মানুষ রাজধানীতে প্রবেশ করেছেন। তাদের একজন আফসানা নওরীন বলেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাজ, কোনো সুযোগ নেই একটি দিন বেশি কাটিয়ে আসব। আজ কাজে যোগ দিতে হবে। ট্রেনে যতটা ভিড় হবে ভেবেছিলাম ততটা ভিড় হয়নি । সুন্দরভাবে আসা সম্ভব হয়েছে।

সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে রাজধানীতে ফেরা মানুষ।

অন্যদিকে শনিবার (০৭ মে) রাজধানীর সদর ঘাট লঞ্চ টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, ঈদের টানা ছুটি শেষে রাজধানীমুখী যাত্রীদের পদচারনায় সদরঘাট যেন তার স্বরূপে ফিরে এসেছে। ভোর থেকেই হকারদের হাক ডাক, লঞ্চের হর্ন, রিকশা, সিএনজি চালকদের হাক ডাকে কর্মচঞ্চলতা ফিরে পেয়েছে। এদিন ভোর থেকেই বরিশাল, ভোলা, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, চরফ্যাশন, হুলারহাট, ভান্ডারিয়া, লালমোহনসহ দেশের বিভিন্ন রুটের যাত্রী বোঝাই লঞ্চ টার্মিনালে ভিড়তে থাকে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে টার্মিনালে লঞ্চ ও যাত্রী বাড়তে থাকে।

এসময় টার্মিনালে লঞ্জজটের সৃষ্টির ফলে অনেক লঞ্চকে টার্মিনালে ভিড়তে ঘণ্টারও বেশি অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। কোন কোন লঞ্চ টার্মিনালে ভিড়তে না পড়ে অন্য লঞ্চের মাধ্যমে যাত্রীদের নামাতে দেখা গেছে। একই সময়ে অনেক লঞ্চ চলে আসায় টার্মিনালের অতিরিক্ত চাপ কমাতে বিআইডব্লিউটিএ এর কর্মকর্তাদের বার বার মাইকিং করে দ্রুত যাত্রী নামিয়ে টার্মিনাল ছাড়ার নির্দেশ দিতে শোনা গেছে। 

ইত্তেফাক/ ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

আজ চাঁদ না দেখা গেলে সন্ধ্যায় ২ মে’র টিকিট বিক্রি 

কমলাপুরে চাপ বেড়েছে ঘরমুখো যাত্রীর

‘টিকিট কালোবাজারি করে ঈদে আয় করতেন ১০-১২ লাখ টাকা’  

শিডিউল বিপর্যয় দিয়ে ট্রেনের ঈদযাত্রা শুরু 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

রেলস্টেশনে বাড়ছে ঘরমুখী মানুষের ভিড়

যে ৫ স্টেশনে মিলবে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট 

লঞ্চে আগুন: শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত