মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বেতন দিতে পারিনি, স্কুল থেকে তাড়িয়ে দিতে চেয়েছিল: শাহরুখ 

আপডেট : ১৮ মে ২০২২, ১৫:০৬

অভাবে বড় হয়েছেন, তাই পয়সার মূল্য বোঝেন— বার বারই বলেন শাহরুখ খান। ঠিক কতটা দুর্দশায় দিন কেটেছে, এক সাক্ষাৎকারে নিজেই তা ভাগ করে নিয়েছিলেন বলিউডের ‘বাদশা’।

সাক্ষাৎকারে কিং খান নিজেই তুলে ধরেন তার ছোটবেলার দিনগুলোর কথা। পরিবারের সঙ্গী নিত্য অনটনের কাহিনী। তিনি বলেন, ‘একবার আমার স্কুলের বেতন দিতে পারেনি বাবা-মা। স্কুল হুমকি দিয়েছিল আমায় তাড়িয়ে দেবে। তোশকের তলায় একটু একটু করে জমানো পয়সা দিয়ে তখন আমার স্কুলের বেতন দিয়েছিল বাবা-মা।

শুধু তা-ই নয়। ওই সাক্ষাৎকারেই শাহরুখ জানান, তার বাবার চিকিৎসায় ২০টি দামি ইনজেকশন দেওয়ার প্রয়োজন ছিল। কিন্তু তা কেনার মতো টাকা ছিল না তাদের হাতে। শেষমেশ লন্ডন-প্রবাসী এক পিসি ৮টি ইনজেকশনের খরচ দেন। 

অভিনেতার আক্ষেপ, ‘আজও জানি না, বাবা টাকার অভাবে ইনজেকশন না পেয়ে মারা গিয়েছিল, নাকি পৃথিবীতে থাকার মেয়াদ ফুরিয়েছিল বলে।’

জীবনে কখনও কারও কাছে একটি পয়সা ধার করেননি। অথচ বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে তাকে। সাক্ষাৎকারে 'বাদশা' বলেন, ‘রাজারা কি কারও সাহায্য চায়? উল্টে নিজের সবটুকু দিয়ে অন্যকে সাহায্য করে। বলিউড তো আমায় রাজা বলে। আমিও তাই রাজার মতোই থাকতে চেষ্টা করি।’

অভাব দেখেছেন, তাই এখনকার বিত্ত, বিলাসও তাকে পাল্টে দিতে পারেনি। এমনটা নিজেই মনে করেন শাহরুখ। কিং খান নিজে তাই শুধু চান, তার সন্তানরা ভাল থাকুক। তাদের মাথার উপরে যেন ছাদ থাকে সব সময়ে।

ইত্তেফাক/এসজেড

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

৫৬ বছর বয়সী মডেলের সঙ্গে মাতলেন তরুণ দুই গায়িকা

৫৬ বছর বয়সেও আগুন ধরালেন মিলিন্দ

বলিউডে আসছেন দক্ষিণী তারকা বিজয়, নতুন পোস্টারে হৈচৈ

শ্রদ্ধার হাতে হাফ ডজন বিগ বাজেটের সিনেমা

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

জটিল রোগে আক্রান্ত শ্রুতি হাসান

‘মুগ্ধতা নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারবেন’

অ্যাম্বার নয়, বেলা হাদিদের চেহারাই সবচেয়ে নিখুঁত

সালমানের পর এবার স্বরাকেও প্রাণে মারার বেনামি চিঠি!