শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সুনামগঞ্জে বিশুদ্ধ পানির অভাব

আপডেট : ২০ মে ২০২২, ২০:২২

সুনামগঞ্জের ৫ উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। শুক্রবার বিকালে সুরমার পানি কমে বিপৎসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর, ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলার মানুষের বিশুদ্ধ পানির সংকটে রয়েছে।

বন্যায় সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা দোয়ারা বাজার ও ছাতক উপজেলা। জেলা প্রশাসন জানায়, এ পর্যন্ত ১৪০ টন চাল, ১২ লাখ টাকা, ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। সদর উপজেলা পারিষদ চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল শুক্রবার বিভিন্ন এলাকায় চাল, চিড়া, মুড়ি, মোমবাতি, দিয়াশলাই বিতরণ করেছেন।

তাহিরপুর উপজেলা প্রশাসন টাঙ্গুয়ার হাওরসহ বিভিন্ন হাওরে পর্যটকদের আসতে নিষেধ করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান কবির জানান, প্রতিকুল আবহাওয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে তাদের আসতে নিষেধ করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল কাশেম বলেন, বন্যা মোকাবিলা করার জন্য যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে। ইতিমধ্যে বন্যা কবলিত উপজেলাগুলো পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট  বিতরণ করা হয়েছে।

সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। সুনামগঞ্জে ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলায় বন্যায় কবলিত মানুষদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। দোয়ারাবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নেওয়া ১৫টি পরিবারের মাঝে প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা হিসেবে প্রায় সাড়ে ১৪ কেজি শুকনা খাবার  ও অন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন সুনামগঞ্জ ৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন। পরে দোয়ারা বাজার ও ছাতক উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নেওয়া প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার একই ওজনের শুকনা ও অন্যান্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

 

 

 

 

ইত্তেফাক/ইউবি