শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১০ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইউএনওর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

হামলার আশঙ্কায় টাঙ্গাইলের সেই কলেজছাত্রী

আপডেট : ২৬ মে ২০২২, ১১:০২

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনজুর হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা কলেজছাত্রী যেকোনো সময় হামলার শিকার হওয়ার আশঙ্কা করছেন। বুধবার (২৫ মে) টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন আশঙ্কার কথা জানান ওই কলেজছাত্রী। তার দাবি, মনজুর হোসেন এলাকার মাদকাসক্ত লোকজনদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তাকে মানসিকভাবে হয়রানি ও বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছেন।

সংবাদ সম্মেলনে ওই কলেজছাত্রী লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘মনজুর হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ার পর তিনি নিজে বাদী হয়ে তার (কলেজছাত্রী) বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি অ্যাক্টে ঢাকায় একটি মামলা করেছেন। যার তদন্ত করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সেই মামলায় দ্বিতীয় সাক্ষী করা হয়েছে ওই কলেজছাত্রীর গ্রামের এক ব্যক্তিকে। যার বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় মাদক, চুরি, ডাকাতি, হত্যা ও ধর্ষণের মামলা রয়েছে।’

কলেজছাত্রী আরও বলেন, ‘মনজুর হোসেন তার ছবি সম্পাদনার মাধ্যমে বিকৃত করে এবং তার নামে ভুয়া ভিডিও ক্লিপ তৈরি করে এলাকায় ছড়িয়ে দিচ্ছেন। তা ছাড়া নামসর্বস্ব কিছু অনলাইন পত্রিকায় ভুয়া সংবাদ পরিবেশন করিয়ে সামাজিকভাবে তাকে হেয় করে যাচ্ছেন।’

এমন পরিস্থিতিতে তার বিরুদ্ধে হওয়া ‘হয়রানিমূলক’ মামলার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়ে ওই কলেজছাত্রী প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট সবার কাছে প্রতিকার কামনা করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে মনজুর হোসেনের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি অসুস্থ অবস্থায় আমার পরিবারের সঙ্গে রয়েছি। ওই মেয়ের (কলেজছাত্রী) বিষয়ে আমি কারও সঙ্গে কথা বলিনি। ওই ছাত্রী আমার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করতে ব্যর্থ হয়ে এসব অভিযোগ করছে।’

প্রসঙ্গত, ওই কলেজছাত্রী বাসাইলের সাবেক ইউএনও মনজুর হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে গত বছরের ২০ অক্টোবর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ দেন। তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন শৃঙ্খলা অধিশাখা থেকে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসককে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। জেলা প্রশাসনের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সোহানা নাসরিন তদন্ত করেন। তদন্ত করে মনজুর হোসেনের সঙ্গে ওই কলেজছাত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের প্রমাণ পাওয়া গেছে উল্লেখ করে ইতিমধ্যে প্রতিবেদন জমা হয়েছে। প্রতিবেদনটি জেলা প্রশাসক মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠিয়ে দেন।

গত বছরের নভেম্বর মাসে ইউএনও মো. মনজুর হোসেন বাসাইল থেকে ঢাকায় বদলি হন। এরপর চলতি বছরের ৪ মার্চ ইউএনও হিসেবে তাকে কিশোরগঞ্জের একটি উপজেলায় পদায়ন করা হয়। কলেজছাত্রীর অভিযোগের বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার পর তাকে সেখান থেকে প্রত্যাহার করা হয়।

ইত্তেফাক/এসজেড

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ভূঞাপুরে বন্যায় দুর্ভোগে মানুষ

মির্জাপুরে লাইনচ্যুত ট্যাংকলরি ১৬ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হয়নি

ভাঙন রোধে স্বেচ্ছাশ্রমে ফেলা হচ্ছে বালুর বস্তা

খুলনায় ধর্ষণ মামলায় পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

চাটমোহরে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১

নাতির কোলে চড়ে ভোট দিলেন শতবর্ষী কাঞ্চন মালা

সখীপুরে ২ ইউপিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর জয়

কিলোমিটার পোস্টে ‘বঙ্গবন্ধু’ বানান ভুল