শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের বর্ণাঢ্য জীবন

আপডেট : ০৯ জুন ২০২২, ০৯:১৫

আ হ ম মুস্তফা কামাল। একজন স্বপ্নবাজ মানুষের নাম। তাকে বেশির ভাগ মানুষ লোটাস কামাল নামে চেনেন। ক্রিকেটের প্রতি বিশেষ আগ্রহ তার। দু’দশকের বেশি সময় ধরে তিনি আবাহনী ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৭০ সালে তদানীন্তন পুরো পাকিস্তানে চার্টার্ড একাউনটেন্সি (সিএ) পরীক্ষায় মেধা তালিকায় সম্মিলিতভাবে প্রথম স্থান অর্জন করেন। এছাড়াও মোস্তফা কামাল ২০১৪-১৫ মেয়াদে আইসিসি’র সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। 

দেশের একজন খ্যাতনামা চার্টার্ড একাউন্ট্যান্ট আ হ ম মুস্তফা কামাল ১৯৪৭ সালের ১৫ জুন কুমিল্লা জেলার নবগঠিত লালমাই উপজেলা বাগমারা ইউনিয়নের দুতিয়াপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মরহুম বাবরু মিয়া, মা মরহুমা সায়রা বেগম।

লোটাস কামাল স্থানীয় দত্তপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষে বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৬২ সালে এসএসসি, পরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি, ১৯৬৪-১৯৬৭ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ থেকে বিকম (অনার্স) ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬৭-৬৮ শিক্ষাবর্ষে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একাউন্টেন্সি ও আইন বিভাগে কৃতিত্বের সঙ্গে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। 

রাজনীতিতে তার হাতেখড়ি ছাত্রজীবন থেকেই। কলেজ জীবনের পুরো সময়ই তিনি ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। ১৯৬৬ সালের ৬ দফা আন্দোলন, ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান এবং ৭০’র ঐতিহাসিক নির্বাচনের সময় তিনি আওয়ামী লীগের একজন বিশিষ্ট সংগঠক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তিনি ১৯৯৬ সালে তৎকালীন কুমিল্লা-৯ (পরিবর্তিত হয়ে বর্তমানে কুমিল্লা-১০) নির্বাচনী এলাকা থেকে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ সময় তিনি পাবলিক একাউন্টস কমিটির সদস্য, বিনিয়োগ বোডের সদস্য, প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সদস্য, অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য, যাকাত বোডের সদস্য এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৪ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত আছেন।

২০০৬ সালের ১২ মে তিনি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব লাভ করেন। পরবর্তীতে ২০১৬ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি কুমিল্লা-১০ নির্বাচনী এলাকা থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে দ্বিতীয় বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৯ থেকে ২০১৩ এই সময়কালে তিনি অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-১০ আসন থেকে তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সর্বশেষ সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি একই আসন থেকে ৪ লক্ষাধিক ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। লোটাস কামাল ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পণা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

পারিবারিক জীবনে ৩ ভাই ও ১ বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। তার স্ত্রী কাশমেরী কামাল একজন সফল ব্যবসায়ী। দুই কন্যা সস্তানের মধ্যে বড় মেয়ে কাশফী কামাল স্বপরিবারে প্রবাসী ও ছোট মেয়ে নাফিসা কামাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চেয়ারপার্সন।

বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে লোটাস কামালের রয়েছে বেশ পরিচিতি। ২০০৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৩ সালের অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট র্বোডের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার সময় ২০১১ সালে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ক্রিকেট বাংলাদেশ সারাবিশ্বে প্রশংসিত হয়। 

জাতীয় সংসদে আজ বৃহস্পতিবার ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করতে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের টানা তৃতীয় মেয়াদের চতুর্থ বাজেট এটি। অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের চতুর্থ বাজেট এটি। 
দৈনিক ইত্তেফাকের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে প্রথম অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ ৭৮৬ কোটি টাকার বাজেট উপস্থাপন করেছিলেন। কালের পরিক্রমায় সেই বাজেটের আকার হতে যাচ্ছে ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। বিগত পাঁচ দশকে দেশের অর্থনীতির অভূতপূর্ব এই উন্নয়ন দেশকে নিয়ে এসেছে নতুন এক মর্যাদায়। বাংলাদেশ এখন মধ্য আয়ের দেশ। এক সময়ের ভঙ্গুর অর্থনীতির দেশ আজ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর মতো প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে।

ইত্তেফাক/মাহি