সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

২৫ গ্রামের মানুষের দুঃখ আট কি.মি. কাচা সড়ক

আপডেট : ২৭ জুন ২০২২, ০২:২০

টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার বড়চওনা-মরিচা ভায়া মহানন্দপুর আঞ্চলিক সড়কটি যুগের পর যুগ পেরিয়ে গেলেও পাকা না হওয়ায় ২৫টি গ্রামের মানুষ পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই সখীপুর উপজেলার উত্তরাঞ্চলের বড়চওনা-মরিচা ভায়া মহানন্দপুর কাঁচা সড়কটি পাকাকরণের দাবি করে আসছেন এলাকাবাসী। এ সড়কটি সামান্য বৃষ্টি হলেই চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ে। প্রতিনিয়তই মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কাঁচা সড়ক পাকা হবে এ আশায় এলাকাবাসী ৫১ বছর ধরে অপেক্ষায় আছেন। কিন্তু কাঁচা সড়ক আর পাকা হয় না। জনপ্রতিনিধিরা বারবার শুধু প্রতিশ্রুতিই দিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু আজও ঐ সড়কটির কোনো উন্নয়ন হয়নি।

কাঁচা সড়কের বেহাল দশা সরেজমিন দেখতে গেলে স্থানীয়রা অসন্তোষ আর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। শুকনো মৌসুমে ধুলাবালি উড়ে আর বর্ষায় কর্দমাক্ত সড়কে হেঁটে চলাও দুষ্কর। সড়কে যাতায়াতকারীদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য লোকজনকে কাদা ভেঙে যাতায়াত করতে হয়। ফলে কোনো ভ্যান, সাইকেল, মোটরসাইকেল তো দূরের কথা, মানুষ পায়ে হেঁটে চলতেও কষ্টের শিকার হন। এ সড়ক দিয়ে বড়চওনা, শিশিরচালা, জিতেশ্বরী, বাসারচালা, মহানন্দপুর, মরিচকুড়ি, কইস্টার বাজার, পাগারপাড়, আইলসার বাজার, দুর্গাপুর, মামুদনগর, সাপিয়ারচালা, মরিচা, তারাকুড়ি, ছাতিয়ারচালা, হারিঙ্গাচালাসহ বিভিন্ন গ্রামের লোকজন যাতায়াত করে থাকে। বিকল্প কোনো রাস্তা না থাকায় এলাকাবাসী বাধ্য হয়েই কাদা-পানি মাড়িয়ে প্রতিনিয়ত চলাচল করছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, লালমাটির সড়কটি সামান্য বৃষ্টিতেই কর্দমাক্ত হয়ে যায়। সড়কের বিভিন্ন অংশে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য ছোট বড় গর্তের। আর তাতে জমছে পানি। চলাচল করতে পারছে না যানবাহন। পায়ে হেঁটে চলাচল করাও এখন কষ্টসাধ্য। সড়কটি পাকা হলে একদিকে যেমন বিভিন্ন গ্রামের ছাত্রছাত্রী ও লোকজনের যাতায়াতে ভোগান্তি কমবে, অন্যদিকে মুমূর্ষু রোগী বহনে বেগ পেতে হবে না। শ্রমজীবী মানুষ ভ্যান, অটোরিকশা চালিয়ে সহজে জীবিকা নির্বাহ করতে পারবেন। এলাকার কৃষকরা ধান, পাট, কাঁচা ফসল কম খরচে বাজারে নিয়ে বিক্রি করতে পারবেন।

দুর্গাপুর বাজারের চা-বিক্রেতা পরিমল বর্মণ বলেন, গ্রামের পাশ দিয়ে চলে যাওয়া কাঁচা সড়কটি দীর্ঘদিনেও পাকা করা হয়নি। বর্ষা মৌসুমে কর্দমাক্ত সড়ক দিয়ে গ্রামবাসীকে চলাচল করতে হয়। আশপাশের কয়েকটি গ্রামে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষ বসবাস করে। এখানকার মানুষজন কৃষির ওপর নির্ভরশীল। সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় তাদের উত্পাদিত কৃষিপণ্য হাটবাজারে নিয়ে যেতে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। বহনে গুনতে হয় তিন গুণ ভাড়া।

মামুদনগর গ্রামের বাসিন্দা আবুল কাশেম ও মিহির চন্দ্র বর্মণ বলেন, বর্ষা মৌসুমে ছাত্রছাত্রীদের স্কুলে ও রোগীদের হাসপাতালে আশা-যাওয়ায় কষ্টের শেষ থাকে না।

দুর্গাপুর গ্রামের বাসিন্দা শামসুল হক বলেন, বর্ষায় রাস্তা খারাপ থাকায় উপজেলা শহরে যাওয়া-আসায় ১৬০ টাকা ভাড়া লাগে। অন্য সময় এ ভাড়া মাত্র ২০-৩০ টাকা। উত্পাদিত কৃষিপণ্য বিক্রি করতে হাটবাজারে নেওয়া যায় না। তিনি জানান, এই এলাকায় প্রচুর পরিমাণে আদা, হলুদ, কচু, লেবু, বেগুন, মরিচ, কলাসহ বিভিন্ন শাকসবজি উত্পাদিত হয়। এছাড়াও রয়েছে পোলট্রি খামার। শুধু মাত্র রাস্তার কারণে এসব পণ্যের ন্যায্যমূল পায় না কৃষক।

স্থানীয় মামুদনগর (দুর্গাপুর) দাখিল মাদ্রাসার সুপার শহীদুল ইসলাম বলেন, এ সড়কটি দৈর্ঘ্য ১১ কিলোমিটার। প্রথম ও শেষ অংশে ৩ কিলোমিটার পাকা হলেও ৮ কিলোমিটার কাঁচা রয়েছে। এই ৮ কিলোমিটারের মধ্যেই প্রাথমিক, মাধ্যমিক পর্যায়ের ২৫/২৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এছাড়াও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘেঁষে ঐ সড়কটি চলে গেছে জানিয়ে বলেন, ২০ বছরের শিক্ষকতা জীবনে কাদা-পানি মাড়িয়ে আসতে হচ্ছে এবং বিভিন্ন গ্রামের হাজার হাজার শিক্ষার্থী কাঁচা সড়কটি ব্যবহার করেই পড়াশোনা করছে। তিনি আরো বলেন, এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী অন্তত ২৫টি গ্রামবাসীর ‘দুঃখ’ বড়চওনা-মরিচা সড়কটি। অবহেলিত সড়কটি কর্তৃপক্ষের কাছে পাকাকরণের জোর দাবি জানিয়েছেন তিনি।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, একের পর এক জনপ্রতিনিধি পরিবর্তন হলেও তাদের সড়কের উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। কাঁচা সড়কটি অতি দ্রুত পাকা করার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ প্রসঙ্গে সখীপুর উপজেলার এলজিইডির প্রকৌশলী বিদ্যুৎ কুমার দাস বলেন, ১১ কিলোমিটারের কাঁচা ঐ সড়কটি বিভিন্ন সময়ে ৩ কিলোমিটার পাকা হয়েছে। আরো ১ কিলোমিটার পাকাকরণের কাজ খুব শিগ্গিরই শুরু হবে। বাকি কাঁচা সড়কও পাকাকরণের জন্য পক্রিয়াধীন।

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বিশেষ সংবাদ

ডাকাত-ছিনতাইকারীদের হাতে জিম্মি যাত্রীরা

টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ: মূলহোতাসহ দুই জনের জবানবন্দি

বাসে ডাকাতি-সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, আরও ২ আসামির জবানবন্দি

চলন্ত বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ: ৬ আসামি ৩ দিনের রিমান্ডে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

নাগরপুরে মাদকসহ মাদককারবারি গ্রেফতার  

মির্জাপুর রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ১৪ ইউপি চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা  

টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ: মূলহোতাসহ গ্রেফতার ১০

বাসচাপায় কনস্টেবল নিহত, অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন ওসি