শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

গাড়িতে পাচারকালে ২০ হাজার পিস ইয়াবাসহ কারবারি গ্রেফতার

আপডেট : ২৭ জুন ২০২২, ২১:০৯

প্রাইভেটকারের এসি মেশিনের পাশের বক্সে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ দিয়ে পাচারকালে ২০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার (২৭ জুন) দুপুরে টেকনাফ থেকে কক্সবাজারের দিকে আনার সময় কলাতলী এলাকা হতে তাকে আটক করা হয়। 

পরে কলাতলী বাইপাস সড়কের বিকাশ বিল্ডিং এলাকায় সেভেন স্টার ওয়ার্কশপে এনে কারটির প্রতিটি পার্টস খুলে এসি মেশিনের পাশের বিশেষ বক্সে এসব ইয়াবা পাওয়া যায় বলে দাবি করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল আলম। গ্রেফতার কারবারি কার চালক করিম উল্লাহ (৩২) টেকনাফের গোদার বিল এলাকার মৃত অলি উল্লাহের ছেলে। 

গাড়িটি কক্সবাজার-টেকনাফ রুটে চলাচল করা যাত্রীবাহী দোয়েল কারের একটি বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। ওসি ডিবির মতে, গাড়িটা প্রাইভেট কার-ই, তবে মাঝেমধ্যে মাদক পরিবহনের আড়ালে টেকনাফ-কক্সবাজার রোডে (অনিয়মিত) যাত্রী বহন করে থাকে।

ডিবির ওসি সাইফুল আলম জানান, গোপন তথ্যে খবর আসে একটি প্রাইভেট কারে মাদকের চালান আসছে। তখন তার (ওসির) নেতৃত্বে ডিবির একটি বিশেষ টিম গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার (২৭ জুন) বেলা ১টার দিকে কক্সবাজারের কলাতলী সংলগ্ন মেরিন ড্রাইভ সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে (ঢাকা মেট্রো ল-১২-০০৮৬) একটি প্রাইভেট কার তল্লাশি করে। 

এসময় প্রাইভেট কারের চালক টেকনাফের করিম উল্লাহকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে চালক ইয়াবা থাকার কথা অস্বীকার করে। পরে আটক করিমসহ কারটি কলাতলি সেভেন স্টার ওয়ার্কসপে এনে মেকানিকের সহায়তায় গাড়ীর বিভিন্ন অংশ খুলে পুঙ্খানুপুঙ্খ তল্লাশি চালানো হয়। এক পর্যায়ে ইঞ্জিনের নীচে এসি মেশিনের পাশে বিশেষ কায়দায় লুকানো দশটি কালো কচ টেপ মুড়ানো প্যাকেটে বিশ হাজার পিচ ইয়াবা জব্দ করা হয়। ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত প্রাইভেট কারও জব্দ করা হয়। 

ওসি আরো জানান, এ ঘটনায় মামলা করে তাকে কক্সবাজার সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক পাচারের নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করলেও আমাদের চোখ ফাঁকি দেওয়া অসম্ভব বলে উল্লেখ করেন তিনি।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি