বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শিক্ষক হত্যা: জিতুর বাবার ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

আপডেট : ২৯ জুন ২০২২, ১৫:৫২

সাভারে কলেজশিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ‍শিক্ষার্থী আশরাফুল ইসলাম জিতুর বাবা উজ্জ্বল হোসেনকে (৪৫) গ্রেপ্তার দেখিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। 

বুধবার (২৯ জুন) দুপুরে আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) জিয়াউল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত জিতুর বাবা উজ্জ্বলকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। রিমান্ড মঞ্জুর হলে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। 

এর আগে এদিন ভোরে তাকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা থেকে উজ্জলকে আটক করে আশুলিয়া থানা পুলিশ। আশুলিয়ায় আনার পর দুপুরে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর পরিবারসহ গা ঢাকা দিয়েছিলেন উজ্জ্বল হাজী। তবে তাকে গ্রেপ্তার করতে পারলেও মূল অভিযুক্ত জিতুকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

কলেজ ক্যাম্পাসে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় আশুলিয়ার চিত্রাশাইলে হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞানের প্রভাষক উৎপল কুমার সরকারকে গত শনিবার (২৫ জুন)  ওই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র আশরাফুল ইসলাম জিতু ক্রিকেট স্ট্যাম্প দিয়ে বেধড়ক পেটায়। পরে গত সোমবার (২৭ জুন) সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত ওই কলেজ শিক্ষক মারা যান। 

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ঘটনার দিন সিসি ক্যামেরা অকার্যকর রাখতে জিতু নিজেই বিদ্যুতের মূল সুইচ বন্ধ রাখে। স্কুলটির এক পরিচালকের আত্মীয় হয় জিতু। সেই ক্ষমতাই জিতুর ওপর কেউ কথা বলতে পারতো না। জিতু নানা অপকর্ম করে বেড়ায়।

স্কুলের এক শিক্ষক জানান, সহকর্মী উৎপল আঘাতের পর পড়ে যাচ্ছিলেন। তাই তাকে ধরতেই জিতুকে ধরেও তখন ছেড়ে দিতে হয়েছে। পরে আরও শিক্ষকেরা উৎপলকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে জিতু সেখান থেকে সটকে পড়ে।

হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক উৎপল সরকার একইসঙ্গে ওই প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি।

প্রায় ১০ বছর ধরে তিনি এ কলেজে অধ্যাপনা করে আসছিলেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর শেষ করে তিনি এই কলেজে শিক্ষকতা শুরু করেন। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থানার এঙ্গেলদানি গ্রামে। পরিবার নিয়ে তিনি ঢাকার মিরপুরে বসবাস করতেন।

ইত্তেফাক/এসজেড