বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর মৃত্যু, স্বামীসহ গ্রেফতার ৪

আপডেট : ৩০ জুন ২০২২, ০৯:৩৮

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলায় গণধর্ষণের শিকার হয়ে এক গৃহবধূর হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হওয়ায় স্বামী লালচান মিয়া, রমছু মিয়া, নাছির মিয়া ও শরিফ মিয়া চার জনকে নিকলী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে বুধবার সকালে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে গৃহবধূ আশামনি (১৯) নানির বাড়ি দক্ষিণ জাল্লাবাদ থেকে স্বামী লালচান মিয়ার বাড়ি সাহাপুর যাওয়ার সময়, আগে থেকে ওত পেতে থাকা স্বামীসহ অন্য সাত-আট জন মিলে আশামনিকে সাহাপুর রাস্তার মোড় থেকে পতিত ভরাটকৃত জমিতে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে চলে যায়। সকালে এলাকাবাসী আশামনিকে উদ্ধার করে নিকলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কিশোরগঞ্জ আধুনিক হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করেন। সেখানে মঙ্গলবার রাত ৩টায় আশামনি হাসপাতালে মারা যান।

আশামনির মামা মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, বেশ কয়েক মাস আগে আমার ভাগনি আশামনির সঙ্গে সাহাপুর গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে লালচানের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী লালচান আমার ভাগনিকে পতিতাবৃত্তি ও অসামাজিক কাজে লিপ্ত করতে চাপ সৃষ্টি করে। ঘটনার দিনও স্বামীসহ কয়েক জন আমার ভাগনিকে কুপ্রস্তাব দিলে আশামনি নানির বাড়ি দক্ষিণ জাল্লাবাদে চলে যায়। সেখান থেকে রাতে স্বামীর বাড়ি আসার সময় স্বামীসহ সাত-আট জন রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ভাগনিকে ধর্ষণ করে। গণধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে আশামনির মামা বুধবার দুপুরে নিকলী থানায় স্বামীসহ সাত জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত নামা কয়েক জনের নামে মামলা করেন।

নিকলী থানার ওসি মো. মনসুর আলী আরিফ বলেন, জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ইত্তেফাক/এমআর