রোববার, ০৭ আগস্ট ২০২২, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সাংবাদিকের প্রশ্ন এড়াতে উদ্ধত জার্মান চ্যান্সেলর 

আপডেট : ৩০ জুন ২০২২, ১৭:৩১

ডয়চে ভেলের এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাব ঠিকমত না দিয়ে সমালোচনার মুখে জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস। তার আচরণ অসম্মানজনক ও উদ্ধত ছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে তা অস্বীকার করেছে ওলাফ সরকার। 

জার্মানির বাভেরিয়া রাজ্যে বিশ্বের ধনী দেশগুলোর সম্মেলন জি-৭-এর সমাপনী সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার ঘটে এ ঘটনা। ডয়চে ভেলের প্রবীণ সাংবাদিক রোজালিয়া রোমানিয়েক জার্মান সরকারপ্রধান ওলাফ শলৎসকে প্রশ্ন করেন, ইউক্রেনকে নিরাপত্তা নিশ্চয়তা দেবার জন্য জি-৭ নেতৃবৃন্দ কী আলোচনা করেছেন তা তিনি একটু বিস্তারিত বলতে পারেন কি না। শলৎস জবাবে বলেছেন, ‘‘বলতে পারতাম।'' কিছুক্ষণ চুপ থেকে তিনি আবার বলেন, ‘‘এটুকুই।'' 

চ্যান্সেলরের জবাবের বেশ সমালোচনা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। সম্মেলনের একটি গুরুত্বপূর্ণ এজেন্ডা নিয়ে তার এমন কাঠখোট্টা জবাবকে ‘ঔদ্ধত্যপূর্ণ' বলে আখ্যা দিয়েছেন নেটিজেনরা।

এই আচরণের জন্য শলৎস ক্ষমতা চাইবেন কি না, বুধবার চ্যান্সেলরের মুখপাত্র ক্রিস্টিয়ানে হফমানের কাছে এ প্রশ্ন করা হলে  তিনি বলেন, ‘‘তিনি (শলৎস) মনে করেন না এর জন্য ক্ষমা চাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।''

এদিকে, শুধু সাধারণ নেটিজেনরাই নন, বিরোধী দলের নেতারাও শলৎসের আচরণকে অনুচিত মনে করছেন। ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন সংসদ সদস্য হারমান গ্র্যোহে শলৎসের সমালোচনা করে টুইট করেছেন। জার্মানির অন্য গণমাধ্যমের সাংবাদিকরাও সমালোচনায় মুখর হয়েছেন।

ডয়চে ভেলের যে সাংবাদিক প্রশ্নটি করেছেন তিনি রীতিমত বিস্মিত এ আচরণে। তিনি বলেন, ‘‘চ্যান্সেলর এমন কাটখোট্টা জবাব এবারই প্রথম দেননি। সাংবাদিক হিসেবে আমাদের সবসময় স্পর্শকাতর বিষয়ে প্রশ্নের এমন জবাবের জন্য তৈরি থাকতে হয়। তবে এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ প্রেস কনফারেন্সে বিশ্বের সবার সামনে তিনি এমনটা করায় আমি রীতিমত বিস্মিত।'' 

ইত্তেফাক/এসআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

জার্মানদের ঠিকমতো ঘুম হচ্ছে না

কেন বারবার দ্বন্দ্বে গ্রিস-তুরস্ক

'ফের কোণঠাসা রোমা সম্প্রদায়' 

জার্মানিকে সহায়তা করে বিপাকে কানাডা

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

রাশিয়া আগ্রাসনের পর খাদ্য শস্যের প্রথম চালান ছেড়েছে ইউক্রেন

জ্বালানি সংকটে জার্মানির হ্যানোভারে গরম পানি ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা

রাশিয়ার সব পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দেবো: জেলেনস্কি

মুদ্রাস্ফীতির সর্বোচ্চ পর্যায়ে জার্মানি: আইএফও