বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পাসপোর্ট জটিলতায় ইউরোপে ৬০ হাজার বাংলাদেশি

আপডেট : ০৩ জুলাই ২০২২, ০১:৪০

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে অবস্থান করা ৬০ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি পাসপোর্ট রি-ইস্যুর জটিলতায় বিপাকে পড়েছে। ই-পাসপোর্ট ও মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরে এক নিয়ম হলেও প্রবাসীদের ক্ষেত্রে আরেক নিয়ম আরোপ করা হয়েছে। ফলে ইউরোপের ইটালি, স্পেন, ইংল্যান্ড, গ্রিস, সুইডেন, জার্মানিসহ বেশ কয়েকটি দেশে অবৈধ বাংলাদেশিদের জীবনে হতাশা নেমে এসেছে। 

ইউরোপের বিভিন্ন দেশের এসব অবৈধ প্রবাসীরা বলছেন, যেভাবেই হোক আমরা তো কাজের জন্য ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ঢুকে পড়েছি। এখন নতুন পাসপোর্ট ছাড়া আমাদের খণ্ডকালীন কাজের কোনো অনুমতি মিলবে না। এমনকি ঐসব দেশে থাকতে গেলে বাংলাদেশের পাসপোর্ট দেখাতে হবে। তাহলে কাজের অনুমতি মিলবে। দেশে রেমিট্যান্স পাঠাতে পারবেন।

ইমিগ্রেশন অ্যান্ড পাসপোর্ট অধিদপ্তর (ডিআইপি) সূত্র জানায়, আগের পাসপোর্টের তথ্যের সঙ্গে বর্তমান এনআইডি ও বিআরসির (জন্ম নিবন্ধন সনদ) তথ্যে গরমিল থাকায় নতুনভাবে পাসপোর্ট করতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন ইউরোপের ৬০ হাজার প্রবাসী। অথচ দেশের অভ্যন্তরে এনআইডি, বিআরসি ও যৌক্তিক প্রমাণাদি দিয়ে সহজেই তথ্য পরিবর্তন-সংশোধন করে এমআরপি রি-ইস্যু করতে পারছেন সবাই। যাদের এমআরপির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, তারা ই-পাসপোর্ট নিতে পারছেন।

জানা গেছে, ২০২১ সালের ২৮ এপ্রিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ থেকে জারি হওয়া পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়, তথ্য সংশোধনপূর্বক দেশে ও বিদেশে পাসপোর্ট রি-ইস্যুর আবেদনে নাম (নিজ, বাবা, মা) পরিবর্তনের ক্ষেত্রে এনআইডি, বিআরসি কিংবা শিক্ষা সনদপত্র বিবেচনা করতে হবে এবং বয়স পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫ বছরের ব্যবধান পর্যন্ত বিবেচনা করা যাবে। এরপরে একই বছরের ৯ ডিসেম্বর একই বিভাগ থেকে জারি করা আরেকটি পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পাসপোর্টের জন্য আবেদনকারীরা এনআইডি ও পাসপোর্টের মধ্যে তথ্যের গরমিল হলে যথাযথ প্রমাণের ভিত্তিতে প্রদত্ত তথ্য (নাম, বাবা-মায়ের নাম, বয়স ইত্যাদি) অনুযায়ী পাসপোর্ট দেওয়া যাবে।

পরের পরিপত্রে প্রবাসীদের কথা উল্লেখ না থাকায় বিপাকে পড়ছেন প্রবাসীরা। তারা এই পরিপত্র সংশোধন করার জোর দাবি তুলছেন। তারা বলছেন, যারা বিদেশে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে দেশে রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন, তাদের জন্য আইনটি অবশ্যই সহজ হওয়া উচিত। তারা অচিরেই এ সমস্যার সমাধান চান। তারা এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

প্রবাসীদের এ সমস্যা সমাধানের বিষয়ে জানতে চাইলে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আইয়ূব চৌধূরী বলেন, যারা যে তথ্যে পাসপোর্ট নিয়ে প্রবাসে অবস্থান করছেন, তারা শুধু তাদের তথ্য সংশোধন করতে পারবেন কিন্তু পরিবর্তন নয়। আমরা দেখেছি অনেকে বিদেশে গিয়ে রাতারাতি তথ্য পরিবর্তন করে আবেদন করছেন, তাদের পাসপোর্ট পাওয়ার ক্ষেত্রে জটিলতা দেখা দেওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। কারণ আমাদের তথ্য ভান্ডারে থাকা আগের তথ্যের সঙ্গে বর্তমান দেওয়া তথ্যের কোনো মিল নেই।

ইত্তেফাক/ইআ