শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

যেটা চিন্তা করিনি, সেটাই হচ্ছে: মিম

আপডেট : ১২ জুলাই ২০২২, ১৬:৫০

চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা সাহা মিম। ঈদ উপলক্ষে রবিবার (১০ জুলাই) মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত ‘পরাণ’ সিনেমা। তার সহশিল্পীরা হলেন শরিফুল রাজ ও ইয়াশ রোহান। পরিচালক রায়হান রাফি। সিনেমাটি দেশের ১১টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে। সিনেমার সাফল্যসহ সার্বিক বিষয় নিয়ে সোমবার কথা বলেছেন ইত্তেফাক অনলাইনের সঙ্গে।

ইত্তেফাক: ঈদের দিন আপনার ‘পরাণ’ সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। কেমন সাড়া পাচ্ছেন?
বিদ্যা সিনহা মিম: ‘পরাণ’ সিনেমা মুক্তির পর থেকে অনেক ভালো সাড়া পাচ্ছি। এতটা চিন্তাই করিনি। সোমবার আমরা ময়মনসিংহে হল ভিজিটে গিয়েছিলাম। সেখানকার প্রত্যেকটি হলে হাউসফুল। ওখানে বসে আমরা শুনলাম, ঢাকার সব হল হাউসফুল যাচ্ছে। সেই সঙ্গে আগামী দুই দিনের টিকিটও বুকিং হয়ে যাচ্ছে। আমাদের পুরো টিম অনেক আনন্দদিত।

শরিফুল রাজ, বিদ্যা সিনহা মিম, ইয়াশ রোহান ও রায়হান রাফি। ছবি: সংগৃহীত

ইত্তেফাক: এই সিনেমার শ্যুটিং যেহেতু মায়মসিংহে হয়েছে, সেখানকার অভিজ্ঞতাটা কেমন?
বিদ্যা সিনহা মিম: ময়মসিংহে অভিজ্ঞতার কথা যদি বলি, ‘পরাণ’ সিনেমার পুরো শ্যুটিং হয়েছে ময়মসিংহে। সেখানকার মানুষের কাছ থেকে আমরা অনেক সহযোগিতা পেয়েছি।  যে কারণের কিন্তু ভালোভাবে শ্যুটিং শেষ করতে পেরেছি। সেই সঙ্গে ময়মসিংহ যে এত সুন্দর শহর, সেটা আমরা কাজ করতে গিয়ে বুঝেছি। বিশেষ করে আমাদের সিনেমার গানগুলোতে যেসব জায়গা দেখানো হয়েছে, সেগুলো অসাধারণ। সব মিলিয়ে অভিজ্ঞতা অনেক ভালো।

ইত্তেফাক: যেহেতু ‘পরাণ’ সিনেমাটা শ্যুটিং ময়মসিংহে। মুক্তির পর সিনেমা দেখার পর তারা আপনাদের তারা কিভাবে গ্রহণ করেছে?
বিদ্যা সিনহা মিম: তারা অনেক এক্সাইটেড। সিনেমাটি মুক্তির পর সোমবার আমরা সেখানে গিয়েছি। তারা এত পরিমাণ খুশি, সেটা চোখে না দেখলে বলে শেষ করা যাবে না।

বিদ্যা সিনহা মিম

ইত্তেফাক: আপনার আগের সিনেমাগুলো থেকে ‘পরাণ’র কোন বিষয়গুলো আলাদা?
বিদ্যা সিনহা মিম: প্রথমতম, ‘পরাণ’ সিনেমার গল্পটা একেবারেই আলাদা। অনেক শক্তিশালী একটা গল্প। সেই সঙ্গে বলতে হয় ‘পরাণ’র মেকিং খুব ভালো ছিল। যে আশা নিয়ে এই সিনেমার কাজ শুরু করেছিলাম, শেষ করার পর বুঝেছি কাজটা অনেক ভালো হয়েছে। একটা অভিনয়শিল্পীর কাজ করে এমন ফিলিংসটা খুব কম হয়।

ইত্তেফাক: ‘পরাণ’-এ আপনার নাম নাম ‘অনন্যা’। শ্যুটিং শেষ হওয়ার পর এই চরিত্র থেকে বের হয়ে আসতে কেমন সময় লেগেছে?
বিদ্যা সিনহা মিম: যেদিন আমাদের শ্যুটিং শেষ হয় সেইদিন আমার খুব মন খারাপ ছিলে। ময়মনসিংহ থেকে ফেরার পরও আমরা একজন আরেকজনকে এসএসএস করছিলাম। অনেকদিন একসঙ্গে কাজ করেছি বলে সবাইকে অনেক মিস করছিলাম। আমি অনেকদিন ‘অনন্যা’ ঘোরের মধ্যেই ছিলাম। আস্তে আস্তে সেটা ঠিক হয়েছে।

বিদ্যা সিনহা মিম

ইত্তেফাক: দর্শকদের উদ্দেশে কী বলবেন?
বিদ্যা সিনহা মিম: গত দুই দিনে আমাদের আমাদের সিনেমা হাউসফুল ছিল। আপনারা এখনো যারা সিনেমাটি দেখেননি,তারা সুযোগ করে হলে গিয়ে দেখবেন। আশা করি, আপনারা খুব ভালো একটা সময় কাটাবেন। কারণ এখন পর্যন্ত যারা সিনেমাটি দেখেছেন, তারা সবাই ভালো রিভিউ দিয়েছেন।

ইত্তেফাক/বিএএফ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন