বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সুজানগরে নাব্য সংকটে ফেরি চলাচল বন্ধ, জনসাধারণের দুর্ভোগ

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২২, ০১:১৫

সুজানগরের নাজিরগঞ্জ এবং রাজবাড়ীর ধাওয়াপাড়া পদ্মা নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। নদীর নাব্যসংকট দেখা দেওয়ায় গত সাত/আট দিন হলো ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ঐ রুটে চলাচলকারী দূরপাল্লার বাস এবং অন্যান্য যানবাহনের পাশাপাশি জনসাধারণের চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। 

নাজিরগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান খান বলেন, নাজিরগঞ্জ-ধাওয়াপাড়া নৌ-রুটে দুটি ফেরি চলাচল করে। প্রতিদিন ফেরি দুটিতে বগুড়া থেকে বরিশালগামী চারটি বাস এবং অগণিত মালামালবাহী ট্রাক ও মাইক্রোবাস যাতায়াত করে। সেই সঙ্গে স্থানীয় জনসাধারণও ঐ ফেরিতে পার হয়ে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন। কিন্তু গত সাত/আট দিন হলো নদীর পানি একদম কমে যাওয়ায় ফেরি দুটি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ঐসব বাসের যাত্রীদের পাশাপাশি বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসায়ীদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

বগুড়া শহরের ধান ব্যবসায়ী আব্দুর রউফ বলেন, আমি প্রতি সপ্তাহে দুই দিন ট্রাকযোগে দিনাজপুর থেকে বরিশাল শহরে ধান পাঠাই। কিন্তু ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে অন্য রুটে ধান পাঠাতে হচ্ছে। এতে তিনি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। সিরাজগঞ্জ বিএডিসিতে কর্মরত বরিশাল শহরের বাসিন্দা আব্দুর রশিদ বলেন, সপ্তাহের শেষ দিন বৃহস্পতিবার অফিস শেষে বাড়ি যাই। কিন্তু ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে বরিশালগামী বাস বিআরটিসি না চলায় যেতে পারছি না। তবে স্থানীয় জনসাধারণ ইঞ্জিনচালিত নৌকায় পদ্মা নদী পার হয়ে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য হারুনর রশিদ বলেন, পদ্মা নদীর পানি একদম কমে গেছে। অনেক সময় যাত্রীবাহী ঐ ইঞ্জিনচালিত নৌকাও পদ্মা নদীর ডুবোচরে আটকে যায়। এ সময় যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়। 

এ ব্যাপারে বিআই ডব্লিউটিএর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৗশলী সুলতান আহমেদ বলেন, পদ্মা নদীর পানি অস্বাভাবিক কমে গেছে। তবে নাব্য বৃদ্ধির জন্য শিগগিরই ড্রেজিংয়ের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

ইত্তেফাক/এমএএম