বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ২ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

চলন্ত বাসে যৌন হয়রানি: বিকাশ পরিবহনের চালক কারাগারে

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২২, ১৭:৫১

রাজধানীর আজিমপুরে চলন্ত বাসে যৌন হয়রানির সঙ্গে জড়িত বিকাশ বাসের চালক মো. মাহবুবুর রহমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। শনিবার (৩০ জুলাই) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল হুদা এ আদেশ দেন।

শনিবার একদিনের রিমান্ড শেষে এদিন তাকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে কারাগারে পাঠান আদালত।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) তাকে আদালতে হাজির করে তাকে পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আজিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আছিবুজ্জামান আসিফ। অন্যদিকে তার আইনজীবী নুরনবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মোস্তফা রেজা নুর তার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ভুক্তভোগী তরুণীর দেওয়া অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রবিবার (২৪ জুলাই) রাত ৮টার পর ধানমন্ডি-২৭ নম্বর থেকে বাসায় ফেরার উদ্দেশ্যে আজিমপুরগামী বিকাশ পরিবহনের বাসে ওঠেন ওই তরুণী। বাসটি নীলক্ষেত মোড়ে পৌঁছালে সব যাত্রী নেমে যায়। এতে বাসে একা হয়ে পড়েন তিনি।

এ সময় চলন্ত বাসে তার পাশে বসে গায়ে হাত দেওয়ার চেষ্টা করেন বাসের হেলপার কাউসার আহমেদ। ওই নারী চিৎকার করলেও না থামিয়ে বাস চালাতে থাকেন মাহবুব। হেলপার ও চালকের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে আজিমপুর গার্লস স্কুলের সামনে বাসের জানালা দিয়ে লাফ দেন তিনি।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন ওই ছাত্রী। সেটি ছড়িয়ে পড়লে আসামিদের খুঁজে বের করতে তৎপর হয়  লালবাগ থানা পুলিশ। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় নিয়ে বিকাশ পরিবহনের বাসটি শনাক্তও করা হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে লালবাগ থানায় মামলা করেন ভুক্তিভোগী নারীর বাবা।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি