শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইউক্রেনের খাদ্যশস্য ভর্তি জাহাজ বন্দর ছাড়তে পারে আজ

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২২, ০০:৫০

খাদ্যশস্য ভর্তি জাহাজ আজ সোমবার ইউক্রেনের ওডেসা বন্দর ছাড়তে পারে বলে তুরস্ক জানিয়েছে। গতকাল রবিবার এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে শনিবার খাদ্যশস্য নিয়ে ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ ওডেসা বন্দর ছাড়ার জন্য ১৬টি জাহাজ প্রস্তুত বলে জানিয়েছিল ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির অফিস। ২৫ মিলিয়ন টন খাদ্যশস্য আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাঠানো হবে। এদিকে ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইউক্রেনের অন্যতম প্রধান শস্য রপ্তানিকারক নিহত হয়েছেন। প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি জানিয়েছেন, তার মতো ব্যক্তি নিহত হওয়ায় দেশের অনেক ক্ষতি হলো।

  • জাহাজ বন্দর ছাড়তে পারে আজ

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন রবিবার জানিয়েছেন, সোমবার খাদ্যশস্য ভর্তি একটি জাহাজ বন্দর ছাড়ার সর্বোচ্চ সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি বলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে সোমবারই জাহাজ বন্দর ছাড়বে। তিনি জানান, ইস্তাম্বুলের যৌথ সমন্বিত কেন্দ্র থেকে শস্য রপ্তানির রুট নির্ধারণের বিষয়ে কাজ চলছে।

  • শস্য রপ্তানিকারক নিহত

ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মাইকোলাইভে ব্যাপক গোলাবর্ষণ করেছে রুশ বাহিনী। শহরটিতে এখন পর্যন্ত রাশিয়ার চালানো সবচেয়ে শক্তিশালী হামলা বলে ধারণা করছেন মেয়র অলেক্সান্ডার সেনকেভিচ। রবিবার দিবাগত রাতে শহরের একটি হোটেল, স্পোর্ট কমপ্লেক্স ও স্কুলে হামলা হয়েছে। শনিবার দিবাগত রাতের হামলা নিয়ে মস্কোর পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোয় হামলার গতি বাড়িয়েছে রুশ বাহিনী। কৃষ্ণ সাগরের কাছে হওয়ায় মাইকোলাইভ শহরটি ইউক্রেনের জন্য কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ। রুশ হামলায় ওলেক্সি ভাদাতুর্স্কিসহ (৭৪) তার স্ত্রী রাইসা নিহত হয়েছেন। তিনি শস্য রপ্তানি করা একটা বড় গ্রুপ ‘নিবুলন’ এর মালিক। তিনি ‘হিরো অব ইউক্রেন’ পুরস্কারও পেয়েছেন।

এদিকে ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণে থাকা পূর্ব দোনেত্স্ক অঞ্চলের কিছু অংশে এখনো যেসব বেসামরিক নাগরিক রয়ে গেছেন তাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। কিয়েভ থেকে গভীর রাতে দেওয়া এক ভাষণে জেলেনস্কি যুদ্ধের তীব্রতা আরো বাড়তে পারে বলে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, যত বেশি মানুষ দোনেত্স্ক অঞ্চল ছেড়ে যাবে, তত কম লোককে হত্যা করার সময় থাকবে রাশিয়ান সেনাবাহিনীর হাতে। এমন এক সময়ে জেলেনস্কির বক্তব্য এলো যখন রাশিয়া-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা দোনেৎস্কের একটি অংশে ৫০ জন ইউক্রেনীয় যুদ্ধবন্দির মৃত্যুর তদন্তের জন্য জাতিসংঘ এবং রেডক্রস কর্মকর্তাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছে রাশিয়া। —বিবিসি, আলজাজিরা ও রয়টার্স

ইত্তেফাক/ইআ