রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শোকাবহ আগস্ট

‘মোশতাক জানতেন বঙ্গবন্ধুকে যে কোনো সময় হত্যা করা হতে পারে’

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২২, ০১:০২

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার এক বছর পর মেজর রশীদ এক সাক্ষাতকারে স্বীকার করে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার কথা। ১৯৭৬ সালের ২ আগস্ট যুক্তরাজ্যের আইটিভিতে প্রচারিত গ্রানাডা টেলিভিশনের ‘ওয়ার্ল্ড ইন অ্যাকশন’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে অ্যান্থনি ম্যাসকারেনহাসকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তত্কালীন মেজর রশীদ ও তার ভায়রা ভাই মেজর ফারুক উপস্থিত ছিল। 

মেজর রশীদ স্বীকার করে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শাসনক্ষমতা থেকে উচ্ছেদ করার জন্য পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী হত্যা করা হয়। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার প্রায় এক বছর পর তারা এ সাক্ষাৎকার দেয়। সেখানে এই দুই খুনির নানা বক্তব্যে ও আলোচনায় উঠে আসে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে বাংলাদেশের জন্য ভালো হয়নি। আপনারা কি তাকে (শেখ মুজিব) পদত্যাগে বাধ্য করতে পারতেন না? তাকে হত্যা করার প্রয়োজন ছিল কি? ম্যাসকারেনহাসের এ প্রশ্নের জবাবে মেজর রশীদ বলে, ‘শেখ মুজিব শাসনের কিছুই জানতেন না। শুধু একটা ভালো গুণ তার ছিল, তিনি জনগণকে উত্তেজিত (সংগঠিত) করতে পারতেন। কাজেই তিনি বেঁচে থাকলে সমস্যার সমাধান করা আমাদের পক্ষে কঠিন হতো। কারণ, তিনি রাজনীতির ব্যাপারে আমাদের চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞ ছিলেন। ম্যাসকারেনহাস প্রশ্ন করেন, কাজেই তাকে হত্যা করতে আপনারা বাধ্য হন...উত্তরে রশীদ বলে, হ্যাঁ, আমাকে তা-ই করতে হয়।

বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডের পর এই খুনি চক্র খন্দকার মোশতাককে রাষ্ট্রপতি পদে বসায়। এই খুনি চক্র যে আগে থেকেই রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত ব্যক্তিদের সঙ্গে  চক্রান্ত করছিল সে কথাও তারা স্বীকার করে। মেজর রশীদ খন্দকার মোশতাকের সঙ্গে ১৯৭৫ সালের আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহেই দেখা করে। তখন খন্দকার মোশতাককে রশীদ আভাসে জানায় যে, শেখ মুজিব ও তার সরকারকে বলপ্রয়োগ করে ক্ষমতাচ্যুত করা হবে এবং এর ফলে মুজিব নিহত হতে পারেন। এক প্রশ্নের জবাবে রশীদ খোলাখুলি তুলে ধরে খন্দকার মোশতাকের সঙ্গে তার কী কী কথা হয়েছিল।

রশীদ বলে, মোশতাককে আমি প্রশ্ন করি। শেখ মুজিবের নেতৃত্বে এদেশ কি উন্নয়নের পথে অগ্রসর হতে পারে? উত্তরে মোশতাক বলে, এর কোনো সম্ভাবনা নেই। একপর্যায়ে খন্দকার মোশতাক বলে, কারো যদি সাহস থাকে, তাহলে ভবিষ্যৎ নেতার জন্য (শেখ মুজিবকে অপসারণের পর যিনি নেতা হবেন) তা ভালোই হবে।

তবে মেজর রশীদ জানায়, ১৫ আগস্টেই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হচ্ছে—এটা মোশতাককে জানাইনি। আমরা শঙ্কিত ছিলাম, যদি এটা তিনি শেখ মুজিবের কাছে ফাঁস করে দিয়ে তার আস্থাভাজন হতে চান? কিন্তু খন্দকার মোশতাক তা করেননি। যদিও সরকারের একজন মন্ত্রী হিসেবে তিনি জানতেন যে বঙ্গবন্ধুকে যে কোনো সময় হত্যা করা হতে পারে।

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

খুনিরা বেতারের নাম রেডিও পাকিস্তানের আদলে ঘোষণা করে রেডিও বাংলাদেশ

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ

‘ইন্দিরা গান্ধী বঙ্গবন্ধুকে বললেন, আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে’

‘শেখ মুজিবের কানে এসেছিল ক্যান্টনমেন্টে কিছু একটা ঘটছে’

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বঙ্গবন্ধুর জীবনালেখ্য নিয়ে ঘুরবে ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর

শোকাবহ আগস্টের প্রথম দিন আজ

তরুণ উদ্যোক্তাদের এগিয়ে নিতে ‘ঐক্য’

৬ দফা বাংলাদেশের স্বাধীনতার ‘ম্যাগনা কার্টা’ ছিল: প্রধানমন্ত্রী