বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জবি ছাত্রীর মোবাইল বিক্রির টাকা দিয়ে মদ পান করে দুই ছিনতাইকারী 

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২২, ০৩:০৩

রাজধানীর কাওরান বাজার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী পারিশা আক্তারের মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন-রাশেদুল ইসলাম (১৭) ও রিপন ওরফে আকাশ (২৪)। মোবাইল ফোনটি ৪ হাজার টাকায় বিক্রি করেছিল গ্রেফতার হওয়া দুই ছিনতাইকারী। ঐ টাকার মধ্যে তারা দুজনে ১ হাজার টাকা করে নিয়ে বাকি ২ হাজার টাকায় মদ কিনে পান করেছিল। মঙ্গলবার গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে এসব তথ্য জানিয়েছেন তারা। বুধবার সকালে রাজধানীর তেজগাঁও থানা কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) রুবাইয়াত জামান।

গত ২১ জুলাই রাজধানীর কাওরান বাজার এলাকা থেকে পারিশা আকতারের  মোবাইলটি বাস থেকে ছিনিয়ে নেয় রিপন ওরফে আকাশ। তাকে ধাওয়া করলে সে (ছিনতাইকারী) মোবাইলটি আরেক জনের কাছে হাতবদল করে পালিয়ে যায়। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে ঐ ছিনতাইকারী ও মোবাইল ফোনটি উদ্ধারে তৎপর হয় পুলিশ। তদন্তে ঘটনাস্থল ও আশপাশ এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সহযোগীকে শনাক্ত করে পুলিশ। তার দেওয়া তথ্যমতে কাওরান বাজারের একটি দোকান থেকে বিক্রি করে দেওয়া মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়। সেই সঙ্গে ছিনতাইকৃত মোবাইল ফোন কেনার অপরাধে দোকান মালিক মো. শফিককে গ্রেফতার করে তেজগাঁও থানার পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার রুবাইয়াত জামান বলেন, ছিনতাইকৃত মোবাইলটি ব্যবহার করা হয়নি। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ছিনতাইকারীকে শনাক্ত করা হয়। ফুটেজে দেখা যায়, আকাশ মোবাইলটি ছিনিয়ে নিয়ে দৌড় দেয় কিন্তু তার পিছু পিছু অন্য এক যুবক দ্রুত হাঁটতে শুরু করে। ঐ যুবকের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় পুলিশ তদন্ত শুরু করে এবং ২৪ জুলাই কাওরান বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, তার নাম রাশেদুল ইসলাম। একপর্যায়ে স্বীকার করে যে, সে এবং রিপন ওরফে আকাশ মিলে এই ছিনতাইয়ের কাজটি করেছে। পরে রিপনকে খুঁজতে গিয়ে পুলিশ জানতে পারে যে, রিপন অন্য একটি মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছে। পরে রিপন ও রাশেদুলকে মুখোমুখি করলে পুরো ঘটনাই স্বীকার করে রিপন ওরফে আকাশ। রিপনের দেওয়া  তথ্যমতে পরে মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়।

ইত্তেফাক/ইআ