শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস আজ

নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়ানোর পরামর্শ

আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০২২, ১০:৪৩

আজ জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস। বর্তমান সরকার ২০০৯ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর ২০১০ সালের ১২ আগস্ট এক পরিপত্রে ৯ আগস্টকে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

দিবসটির তাৎপর্য হচ্ছে, ১৯৭৫ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শেল অয়েল কোম্পানির কাছ থেকে ৪৫ লাখ পাউন্ড স্টার্লিংয়ে (তখনকার ১৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকা) পাঁচটি গ্যাসক্ষেত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানায় কিনে নেন। 

ক্ষেত্রগুলো হচ্ছে- তিতাস, বাখরাবাদ, রশিদপুর, হবিগঞ্জ ও কৈলাসটিলা। এই গ্যাসক্ষেত্রগুলো দেশের জ্বালানি নিরাপত্তার বড় নির্ভরতা হয়ে ওঠে। এখন দেশে মোট গ্যাস উৎপাদনের মধ্যে আন্তর্জাতিক তেল গ্যাস কোম্পানি (আইওসি) ৫৯ শতাংশ এবং দেশীয় কোম্পানিগুলো ৪১ শতাংশ গ্যাস উৎপাদন করছে। দিবসটি উপলক্ষে আজ একটি ওয়েবিনারের আয়োজন করেছে জ্বালানি বিভাগ।

দেশে খনিজসম্পদ অনুসন্ধান ও উত্তোলন কার্যক্রমে এক রকম ভাটার টান। অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতিতে উল্টো কমছে উৎপাদন। সরবরাহ বাড়াতে নেই সঠিক পরিকল্পনা। দিন দিন বাড়ছে এর চাহিদা। ঘাটতি মেটাতে জ্বালানি খাতে আমদানি নির্ভরতাও বাড়ছে। জ্বালানি তেলের পাশাপাশি এখন গ্যাসও আমদানি হচ্ছে। বাড়ছে কয়লা আমদানিও। বিশ্ববাজারে উচ্চ দর এবং পরিকল্পনা নির্ধারণে অদূরদর্শিতায় আমদানিও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। লক্ষ্যমাত্রা অনুসারে নবায়নযোগ্য জ্বালানির উৎপাদন বাড়েনি। ফলে দেশের জ্বালানি নিরাপত্তা দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। এই আপৎকালে জ্বালানি সংকট আরও ঘনীভূত হয়েছে।

নিরবচ্ছিন্ন ও সাশ্রয়ী জ্বালানি সরবরাহের অনিশ্চয়তায় বিদ্যুৎ, সার ও শিল্প উৎপাদন খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। জ্বালানির আকাশচুম্বী আন্তর্জাতিক দর সরকারের ভর্তুকি বাড়িয়ে দিচ্ছে। খরচ সামলাতে বারবার বাড়ানো হচ্ছে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও তেলের দাম। বেড়ে যাচ্ছে দ্রব্যমূল্য, কৃষি উৎপাদন ও পরিবহন খরচ। সবকিছুর চাপে চিড়েচ্যাপ্টা সাধারণ মানুষের জীবন।

জ্বালানির এমন দুঃসময়ে আজ মঙ্গলবার পালিত হচ্ছে জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস। এ উপলক্ষে আলাদা বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রপতি তাঁর বাণীতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি তেল ও গ্যাসের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির নিয়ামক হিসেবে জ্বালানিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

টেকসই জ্বালানি নিরাপত্তার জন্য বিশেষজ্ঞরা নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়ানোর পাশাপাশি দেশীয় সম্পদ অনুসন্ধানে জোরাল পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইত্তেফাক/মাহি