শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে হবে- পাবিপ্রবি উপাচার্য

আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০২২, ১৯:৩৮

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ওনার জীবনে অনেক আদর্শ রেখে গেছেন। ওনার আদর্শকে আমাদেরকে হৃদয়ে ধারণ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করতে পারলেই আমরা অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারবো। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আজকে অনেক বই বের হয়েছে। আমরা বইগুলো পড়লে ওনার জীবনের খুঁটিনাটি সব কিছু জানতে পারবো। পুরো জাতি তরুণ প্রজন্মের দিকে জাতি তাকিয়ে আছে, তরুণ প্রজন্ম এগিয়ে আসলেই জাতিকে সামনে নিয়ে যাওয়া সম্ভব বলে আমি মনে করি।

সোমবার (১৫ আগস্ট) জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।  

জাতির পিতা ও তার পরিবারের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট জাতীয় জীবনে একটি কলঙ্কের দিন। যার হাত ধরে আমরা সুন্দর একটা দেশ পেয়েছি একটি কুচক্রী মহল তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করা হয়েছে। ১৫ আগস্ট নিহত সকল শহীদদের আমরা শ্রদ্ধা জানাই।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কথা উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১৫ আগস্টের শোককে শক্তিতে পরিণত করেছেন। সেই শোকের শক্তির মাধ্যমেই তিনি দেশকে পরিচালিত করছেন। উনি উনার মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। উনার নেতৃত্বের কারণেই বাংলাদেশ আজকে পৃথিবীর বুকে রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। 

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান বলেন, আজকের এই দিনে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিনম্রচিত্তে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ শাহাদাৎ বরণ করা প্রতিটি মানুষকে স্মরণ করছে। সারা বিশ্বে আজ এক ক্লান্তিকাল সময় পার করছে, এর মধ্যেও আমরা গভীর শ্রদ্ধার সাথে আমাদের জাতির পিতাকে স্মরণ করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে বাংলাদেশ এগিয়ে যাক। পৃথিবীর বুকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে স্মার্ট বাংলাদেশ হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
    
এর আগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে শোক র‍্যালির আয়োজন করা হয়। র‍্যালিটি প্রশাসনিক ভবন থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ ম্যুরাল ‘জনক জ্যোতির্ময়’ এ গিয়ে শেষ হয়। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ‘জনক জ্যোতির্ময়’ এ উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন এবং উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন। এরপর এক এক করে বিভিন্ন অনুষদ, বিভাগ, দপ্তর এবং সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো ‘জনক জ্যোতির্ময়’ এ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। 

সবশেষে ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদদের স্মরণে এক (০১) মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং শহীদের আত্মার মাগফেরাত জন্য দোয়া করা হয়।

ইত্তেফাক/এআই