সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রাজউকে জাতীয় শোকদিবস পালিত

বিদেশিরা নয়, জনগণই কাউকে ক্ষমতায় বসাতে পারে : মায়া

আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১:১৩

আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, বিএনপি বিদেশে গিয়ে বিদেশিদের পা ধরে বসে থাকে। বিদেশিরা কখনো কাউকে ক্ষমতায় বসাতে পারবে না। এ দেশের জনগণই পারে কাউকে ক্ষমতায় বসাতে, আর সেটি হলো নির্বাচনের মাধ্যমে। গতকাল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষ্যে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের শ্রম ও জনশক্তিবিষয়ক সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান সিরাজ বলেন, খুনি জিয়াউর রহমানের লেলিয়ে দেওয়া খুনিরাই বঙ্গবন্ধুকে রাতের অন্ধকারে হত্যা করেছে। বিশিষ্ট কলামিস্ট অজয় দাশগুপ্ত বলেন, বঙ্গবন্ধুর চেতনায়, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দেশ পরিবর্তন হচ্ছে। তার প্রচেষ্টা সফল হবে। রাজউক চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিয়ার সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, রাজউকের সদস্য (উন্নয়ন) মেজর (অব.) প্রকৌশলী শামসুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী, রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী (বাস্তবায়ন) উজ্জল মল্লিক, শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি আবুল বাশার শরীফ প্রমুখ।

জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখছেন রাজউক চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিয়া। 

শামসুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী বলেন, জাতির জন্য ১৫ আগস্ট একটি কলঙ্কময় দিন। শোককে শক্তিতে পরিণত করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করতে হবে। উজ্জল মল্লিক বলেন, দীর্ঘদিন বঙ্গবন্ধু ছিলেন পাকিস্তানের কারাগারে। তার ব্যক্তিত্ব ছিল হিমালয়ের মতো। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সব জায়গায় ছড়িয়ে দিতে আমরা রাজউকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি স্থাপন করেছি, বঙ্গবন্ধু কর্নার করেছি।’

মো. আনিছুর রহমান মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো পৃথিবীর ইতিহাসে এমন মানবতাবাদী নেতা বিরল। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে কর্মজীবনে প্রতিফলন ঘটানোর জন্য রাজউক কর্মকর্তা কর্মচারীদের আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে সকালে রাজউক ভবনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাজউক চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান মিয়া নেতৃত্বে সব স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিভিন্ন সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে রাজউক ভবনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু কর্নার পরিদর্শন, খতমে কোরআন, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতাসহ ১৫ আগস্টের সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল এবং অসহায় দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

ইত্তেফাক/ইআ