মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নজরদারিতে পুঁজিবাজারের ওয়াচডগ খ্যাত ‘দ্য বিগ ফোর’

আপডেট : ১৭ আগস্ট ২০২২, ১২:০৮

বিশ্ব অর্থনীতির রাঘববোয়াল হিসেবে খ্যাত ‘দ্য বিগ ফোর’ নজরদারিতে রয়েছে। ওয়্যারকার্ড কেলেঙ্কারি পর বিশ্বের বৃহৎ চার নিরীক্ষা (অডিটিং) সংস্থার ভূমিকাও প্রকাশ্যে এসেছে।

যদিও তাদের কাজ কোম্পানিগুলোর প্রতি আস্থা তৈরি করার কথা। তবে আপাতত দৃষ্টিতে তাদের প্রতারণামূলক বিভিন্ন কাজ প্রকাশ্যে আসছে।

একক কোনও প্রতিষ্ঠানের নাম নয় ‘দ্য বিগ ফোর’। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চারটি বৃহত্তম অ্যাকাউন্টিং সংস্থাকে এক সঙ্গে এই নামে ডাকা হয়। সেগুলো হচ্ছে- আর্নেস্ট অ্যান্ড ইয়োং (ইওয়াই), প্রাইস ওয়াটার হাউজ কুপার্স (পিডব্লিউসি), ক্লেনভেল্ড পেট মারউইক গোয়ের ডিলার (কেপিএমজি) এবং ডেলোয়েট। অডিটিং বা নিরীক্ষণ পরিসেবা ছাড়াও ট্যাক্স, কৌশল এবং ব্যবস্থাপনা পরামর্শ, মূল্যায়ন, বাজার গবেষণা, নিশ্চয়তা এবং আইনি পরামর্শমূলক ইত্যাদি সেবা দিয়ে থাকে এই ‘বিগ ফোর’।

এই প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম সাধারণ মানুষের কাছে তেমন পরিচিত নয়, তারপরও এগুলো বিশ্ব অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আর এই সবগুলো প্রতিষ্ঠানই অনেক বড় আর্থিক কেলেঙ্কারির কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে।

দীর্ঘ দশ বছর ধরে আর্নেস্ট অ্যান্ড ইয়োং (ইওয়াই) নিরীক্ষকরা ওয়্যারকার্ডের (জার্মান ভিত্তিক পেমেন্ট প্রসেসর এবং আর্থিক পরিষেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, যা ইতিমধ্যে দেউলিয়া হয়ে গেছে) বার্ষিক আর্থিক বিবৃতিগুলোকে প্রত্যয়িত করেছেন। তারা উদ্ঘাটন করতে ব্যর্থ হয়েছেন যে প্রতারকদের একটি চক্র বিগত কয়েক বছর ধরে ওয়্যারকার্ডের বইগুলোতে ‘বিলিয়ন’ লিখতে অ্যাকাউন্টিং কৌশল ব্যবহার করছে।

ওয়্যারকার্ডের শত শত কর্মচারী তাদের চাকরি হারিয়েছে এবং হাজার হাজার বিনিয়োগকারী ৪ দশমিক ৫ বিলিয়ন ইউরো হারিয়েছে। অডিটররা কেন জালিয়াতি ধরতে পারেনি? তারা কি অমনোযোগী ছিলেন নাকি অতিমাত্রায় দীর্ঘায়িত করেছে তাদের কাজকে?

বিশ্বব্যাপী নিরীক্ষা শিল্পে আধিপত্য বিস্তার করে আছে ‘বিগ ফোর’। তাদের কোম্পানি ও ট্যাক্স-আইন সম্পর্কিত বিস্তৃত জ্ঞান বিশ্বব্যাপী তাদের অপরিহার্য করে তুলেছে। নিরীক্ষায় প্রবৃদ্ধির সুযোগ অনেকাংশে কমে যাওয়ার কারণে বিগ ফোর এখন কেবলমাত্র বিভিন্ন কোম্পানিকে অডিট সেবাই দেয় না, বরং তারা বিভিন্ন সরকারকেও পরামর্শমূলক পরিসেবাও দিয়ে থাকে।

ইত্তেফাক/টিআর