শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ফিল্মি স্টাইলে বাইক চুরি অবশেষে ধরা

আপডেট : ২১ আগস্ট ২০২২, ১৬:৫৮

ফিল্মি স্টাইলে বাইক চুরির পর কক্সবাজার জেলার বাইক চোর চক্রের প্রধান মুন্নাসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৫'র সদস্যরা। এসময় চোরাইকৃত একটি বাইকও জব্দ করা হয়েছে।

শনিবার (২০ আগস্ট) কক্সবাজার সদরের লিংকরোড এলাকা হতে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার র‍্যাব-১৫'র মিডিয়া কর্মকর্তা এএসপি বিল্লাল উদ্দিন। 

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, কক্সবাজার পৌরসভার টেকপাড়া এলাকার মৃত মোস্তাফা কামালের ছেলে মেসবাহুল হক মুন্না (২২) ও পৌরসভার সাহিত্যিকাপল্লী এলাকার আব্দুর রশিদের ইব্রাহিম খলিল (২৬)। 

র‍্যাব-১৫'র মিডিয়া কর্মকর্তা এএসপি বিল্লাল উদ্দিন জানান, কক্সবাজারের চকরিয়ার কোনাখালীর জংগলকাটা (বেতুয়া) এলাকার নুরুল আবছারের ছেলে ফরহাদ উদ্দিন (৩৫),  গত ১৯ আগস্ট র‌্যাব-১৫ এর সিপিএসসি ক্যাম্পে অভিযোগ করেন, ১৫ আগস্ট সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার ব্যক্তিগত মোটর সাইকেলটি ঈদগাঁও থানার জালালাবাদের বঙ্কিম বাজার ডিসি রোড এলাকার ওমর বিন ছগিরের মালিকার ছগির ম্যানশনের নিচতলার পার্কিংস্থলে রেখে ৩য় তলায় নিজ বাসায় যান। পরদিন পার্কিংস্থলে মোটর সাইকেল দেখতে না পেয়ে সিসিটিভি ফুটেজ দেখেন এবং দুইজন অজ্ঞাত ব্যাক্তি দ্বারা চুরির বিষয়ে নিশ্চিত হন। পরবর্তীতে অনেক খোঁজাখুজির পরও মোটর সাইকেলটির কোন সন্ধান না পেয়ে এ বিষয়ে কক্সবাজারের ঈদগাঁও থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু করেন (মামলা নং-৭/৬০, ৩৮০ পেনাল কোড ১৮৬০)। 

তিনি আরও জানান, বিষয়টি র‌্যাব-১৫ অবগত হয়ে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে। তথ্যের ভিত্তিতে কক্সবাজার সদরের লিংকরোড এলাকায়  অভিযান চালিয়ে এক মার্কেটের সামনে থেকে অভিযোগকারির ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করা হয়। সাথে চুরির সাথে জড়িত মুন্না ও ইব্রাহিম খলিলকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় অভিযানকারীরা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছে ফিল্মি স্টাইলে তারা দীর্ঘদিন ধরে মোটর সাইকেল চুরি করে আসছে। এটিও তারা ঈদগাঁওর সেই বাসা থেকে চুরি করে পালিয়ে আসে।

এএসপি বিল্লাল উদ্দিন জানান, মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করে মালিকের কাছে এবং গ্রেফতারকৃতদেরকে ঈদগাঁও থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। 

ঈদগাঁও থানার ওসি মো. আবদুল হালিম তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক মুন্না জেলার বাইক চোর সিন্ডিকেটের অন্যতম প্রধান বলে তথ্য মিলেছে। তাকে রিমান্ডে নিয়ে তার দলের অন্য সদস্য ও চুরি যাওয়া অন্য গাড়ি সম্পর্কে তথ্য বের করার চেষ্টা করা হবে 

ইত্তেফাক/এমএএম