শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জাপার ২৬ এমপির মধ্যে ২৩ জনের সম্মতি

জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করতে স্পিকারকে চিঠি

আপডেট : ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:১৩

‘দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকায় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে রওশন এরশাদ সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না’—এমন কারণ দেখিয়ে তার পরিবর্তে জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার জন্য স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দিয়েছে দলটির পার্লামেন্টারি পার্টি। গতকাল বৃহস্পতিবার অধিবেশনের মাগরিবের বিরতি চলাকালে স্পিকারকে এই চিঠি দেওয়া হয়েছে। এর আগে দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সংসদ ভবনে জি এম কাদেরের সভাপতিত্বে পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠক হয়। বৈঠকে জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার সিদ্ধান্ত হয়।

স্পিকারকে তার কার্যালয়ে গিয়ে চিঠিটি পৌঁছে দেন জাপার মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা, জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম এমপি ও লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি। অন্যদিকে, জাপার এই চার নেতা যখন স্পিকারের কার্যালয়ে ছিলেন তখন সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কার্যালয়ে দেখা করেছেন জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রওশন অনেকটা হঠাৎ করেই আগামী ২৬ নভেম্বর জাপার দশম কাউন্সিল ডেকেছেন। জাপার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন নিজের স্বাক্ষর করা চিঠিতে এই কাউন্সিল ডাকেন। যেটিকে ‘এখিতয়ার বহির্ভূত’ ও ‘হাস্যকর’ বলে মন্তব্য করেছেন জাপার চেয়ারম্যান জি এম কাদের ও মহাসচিব চুন্নু। রওশনের কাউন্সিল ডাকার পরদিনই অসুস্থতার কারণ সামনে এনে তাকে বিরোধীদলীয় নেতার চেয়ার থেকে সরানোর উদ্যোগ নিয়েছে পার্লামেন্টারি পার্টি।

স্পিকারকে চিঠি দেওয়ার পর জাপা মহাসচিব চুন্নু সংসদ ভবনে ইত্তেফাককে জানান, স্পিকার চিঠি গ্রহণ করেছেন, তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানিয়েছেন। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে চুন্নু বলেন, ‘রওশন এরশাদ অসুস্থ, তিনি তো দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না। পদটি তো কোনো স্ট্যাচু নয়, এখানে ফাংশন করার বিষয়। এ কারণে আমাদের পার্লামেন্টারি পার্টি জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

স্পিকারকে দেওয়া চিঠির একটি কপি এই প্রতিবেদকের কাছে রয়েছে। চিঠিতে স্পিকার বরাবরে লেখা হয়েছে, আজ ১ সেপ্টেম্বর ২০২২ জাপার চেয়ারম্যান ও পার্লামেন্টারি পার্টির প্রধান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের সভাপতিত্বে পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে জাপার ২৬ জন এমপির মধ্যে ২৩ জন উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে যে, দীর্ঘদিন অসুস্থতার কারণে বেগম রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না—এমতাবস্থায় পার্টি চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠিতে স্পিকারকে অনুরোধ জানানো হয়। চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা।

ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে সংসদ ভবনে রাঙ্গা ইত্তেফাককে জানান, রওশন এরশাদ ও সাদ এরশাদ বিদেশে থাকায় এবং নারায়ণগঞ্জের সেলিম ওসমান আসতে না পারায় তারা তিন জন পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠকে থাকতে পারেননি। অন্যরা সবাই ছিলেন এবং জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেছেন, এমনকি তারা সভায় গৃহীত রেজুলেশনে স্বাক্ষরও করেছেন। জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি সংসদ ভবনে ইত্তেফাককে জানান, সেলিম ওসমান আসতে না পারলেও ফোনে তিনি তার সম্মতির কথা জানিয়েছেন।

এদিকে, জি এম কাদের গতকাল বলেছেন, জাপা এখন যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি ঐক্যবদ্ধ ও সংগঠিত। গণমানুষের প্রত্যাশা পূরণে এগিয়ে যাবে জাপা। কোনো ষড়যন্ত্রই জাপার ঐক্যে ফাটল সৃষ্টি করতে পারবে না। এরশাদের সৈনিকরা ষড়যন্ত্রে কখনোই বিভ্রান্ত হবে না। কোনো ষড়যন্ত্রে মাথা নত করবে না জাপা। সব ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে আমরা এরশাদের স্বপ্নের নতুন বাংলাদেশ গড়ে তুলব।’ জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর জন্মদিন উপলক্ষ্যে গতকাল জাপা চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে জি এম কাদের এ কথা বলেন।

জাপার একাধিক সংসদ সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকালের পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠকে আলোচনা হয়েছে যে, জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার বিষয়ে পার্লামেন্টারি পার্টির চিঠি স্পিকার আমলে না নিলে সংসদের আগামী অধিবেশনে দলের এমপিরা ওয়াকআউট করবেন। এ ব্যাপারে বৈঠকে অলিখিত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও জানান দলটির এই এমপিরা। পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠকে জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং কো-চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা ও সালমা ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/ইআ