বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

টেলিমেডিসিন সেবা প্রদানে গ্লোবাল হেলথ এবং ভিমস সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর

আপডেট : ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৩২

বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর কয়েক লাখ রোগী উন্নত চিকিৎসার আশায় উড়ে যাচ্ছেন ভারতের বিভিন্ন হাসপাতালে। চিকিৎসার জন্য গিয়ে পরছেন দালালের খপ্পরে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, ২০২০ সালে ভারতের মেডিকেল ট্যুরিস্টদের মধ্যে বাংলাদেশি ছিল ৫৪ দশমিক ৩ শতাংশ।  বাংলাদেশি রোগীদের ভোগান্তি দূর করতে এবং দেশে বসেই স্বল্প মূল্যে ভারতীয় ডাক্তারের পরামর্শ দেয়ার লক্ষ্যে গত ২৯ আগস্ট ২০২২ যাত্রা শুরু করছে হেলথ টেক স্টার্ট আপ “গ্লোবাল হেলথ”। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের নামিল নাড়ুর ভিমস সুপার স্পেশিয়ালিটি হাসপাতালের মার্কেটিং ডাইরেক্টর অশোক মালাকার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিমস হাসপাতালের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করে প্রতিষ্ঠানটি। এসময় ভিডিও কলের মাধ্যমে যুক্ত হন হাসপাতালের ডাক্তারস ডাইরেক্টর ডা. কে মিনাকসী সুন্দারাম। ডা. কে মিনাকসী সুন্দারাম গ্লোবাল হেলথের সাধুবাদ জানান। 

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অশোক মালেকার বলেন “বাংলাদেশি পেসেন্টদের জন্য আমরা সব থেকে কম মূল্যে সর্বচ্চো সেবা প্রদান করবো। রোগীর সাথে আশা এ্যাটেন্ডেন্টের ফ্রি থাকা ও লন্ড্রীর সুব্যবস্থা এবং সল্পমূল্যে খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ভিমস এবং গ্লোবাল হেলথ একসাথে বাংলাদেশের মানুষদের সেবা দিয়ে জানে বলে আশা করছি।“ 

ভিমস হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে ফিরা আসা একজন রোগী বলেন, “আমি হার্টের চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলাম। ডাক্তার এতো ফ্রেন্ডলি যে আমি তার কথাতেই অর্ধেক সুস্থ্য হয়ে যাই।“ 

গ্লোবাল হেলথের মাধ্যমে দেশে বসেই ভারতীয় বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সেকেন্ড, কন্সাল্টেন্সি, রিপোর্ট দেখানোর সুবিধা ভোগ করতে পারবেন বাংলাদেশী রোগীরা। রোগীদের ভাষাগত জটিলতা এবং সার্বিক সাহায্যের জন্য ভিডিও কন্সাল্টেন্সিতে একজন বাংলাদেশি ডাক্তার যুক্ত থাকবেন। ভারতে অপারেশনের পরের ফলো আপ সেবাও নিতে পারবেন দেশে বসেই।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা

ভিডিও কলে কনসালটেন্সি নিয়ে রোগীর ৭০-৮০ হাজার টাকা সঞ্চয় করা সম্ভব বলে দ্বাবি করেন প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তানজির আবেদিন। তিনি বলেন ”এখন আর রিপোর্ট দেখানো, সেকেন্ড অপিনিয়ন বা কনসালটেন্সির জন্য কাউকে ভারতে যেতে হবে না। এতে করে রোগীর অপারেশনের আগে ৭০/৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত সঞ্চয় করা স্বম্ভব।“ 

ভিমস হাসপাতালকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, “আমাদের ডাকে সারা দিয়ে বাংলাদেশের মানুষের জন্য কাজ করার জন্য আপনাদের ধণ্যবাদ। আশা করছি আমাদের এই চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে চট্টগ্রাম তথা দেশের প্রতিটি মানুষ উপকৃত হবেন।“ 

এসময় উপস্থিত ছিলেন জোতি ইন্টার্ন্যাশনের হেড অফ আইডিয়াশন জনাব তৌফিক আল মুবারাক। তিনি গ্লোবাল হেলথ ও ভিমসের এই উদ্যোগকে স্বাধুবাদ জানিয়ে বলেন, “সময় উপযোগী উদ্যোগ। আপনাদের এই উদ্যোগের জন্য দেশের অনেক রোগী ভারতে চিকিৎসা করতে গিয়ে দালালের খপ্পররে পরবে না।“ 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ভিমস হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া বেশ কয়েকজন রোগী এবং তাদের আত্মীয়।

ইত্তেফাক/ইআ