বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পরিবারের আবেদন

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৪৭
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে। রোববার দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সহকারী এ বি এম আব্দুস সাত্তার এবং বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদনপত্র জমা দিয়ে এসেছেন।
 
বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। উল্লেখ্য, চলতি মাসের ২৪ তারিখ খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ শেষ হবে।
 
এর আগে গত ২৪ মার্চ খালেদা জিয়ার দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত রেখে শর্ত সাপেক্ষে তার মুক্তির মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ মাসে সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পরিবারের তরফ থেকে নতুন করে আবেদন করা হল।
 
খালেদা জিয়া। ছবি: সংগৃহীত
 
প্রতিবার একই শর্তে তাকে কারাগারের বাইরে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। শর্ত হল, মুক্ত থাকার সময়ে খালেদা জিয়াকে ঢাকায় নিজের বাসায় থাকবেন এবং তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না। সে অনুযায়ী, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সাময়িক মুক্তি মেলার পর থেকে গত আড়াই বছর ধরে তিনি গুলশানের বাসাতেই থাকছেন।
 
২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় সাজা হলে কারাজীবন শুরু হয় খালেদা জিয়ার। পরে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায়ও তার সাজার রায় হয়।

৭৭ বছর বয়সী এই সাবেক প্রধানমন্ত্রী বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন।

করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার পর ২০২১ সালের এপ্রিলে খালেদাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর কয়েক দফা হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার পর বাসায় ফেরেন তিনি।

ইত্তেফাক/এসসি