শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বেড়েছে দুর্যোগ, হুমকিতে সুন্দরবনের বন্যপ্রাণী

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪৪

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বাড়তি ঘূর্ণিঝড় ও জলচ্ছ্বাসের মুখোমুখি হচ্ছে সুন্দরবন। নিম্নচাপ ও পূর্ণিমার অস্বভাবিক জোয়ারে তলিয়ে যাচ্ছে বনের নতুন নতুন এলাকা। এতে বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে রয়েছে বলে বনকর্মকর্তারা জানিয়েছেন। 

জানা গেছে, সমুদ্র উপকূলে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন। ১০ হাজার বর্গ কিলোমিটার আয়তনের ৬ হাজার বর্গ কিলোমিটারই রয়েছে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে। পরম বন্ধু হয়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করে চলেছে। ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য এই বন। 

বনবিভাগের কর্মীরা বলছেন, আগে এক বা দুটি ঘূর্ণিঝড় বা জলোচ্ছ্বাস আঘাত হানতো বাংলাদেশে। এখন অন্তত ৬ থেকে সাতটি ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সুন্দরবনকে। এটি ঘটছে কেবল জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবেই।

পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী ও প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবির বলেন, গত ৪ দিনে সুন্দরবনে জোয়ারের পানির উচ্চতা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, বন্যপ্রাণী হুমকির মুখে আছে। বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হলে জোয়ারের পানি বেড়ে তলিয়ে যাচ্ছে করমজল পর্যটন ও বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রসহ সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা। এতে বন্যপ্রাণীর ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

বনকর্মকর্তা আজাদ কবির আরও বলেন, ‘এই মুহূর্তের জন্য আমাদের সুন্দরবনের ভেতরে কিছু কিছু জায়গা উঁচু ঢিবি করে দেওয়া দরকার। যেখানে সুন্দরবনের বন্যপ্রাণীগুলো আশ্রয় নিয়ে টিকে থাকতে পারে’। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ায় নিচু অঞ্চলগুলোতে লোনা পানি ঢুকে সুন্দরবনের বাস্তুতন্ত্রের ব্যাপক পরিবর্তনের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিন প্রধান ড. আব্দল্লাহ হারুন চৌধুরী বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সুন্দরবন পেশাজীবী ছাড়াও আশপাশের মানুষের জীবন চক্রেও এক ধরনের পরিবর্তন হচ্ছে।’ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বৈশ্বিক ও রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ বাস্তবায়নের পাশাপাশি সুন্দরবন ব্যবহারকারীদেরও সচেতন হওয়ার তাগিদ দেন তিনি। 

লোকালয়ে বানর

বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুননাহার এমপি বলেন, ‘প্রাকৃতিক দুর্যোগের ওপরে কারও হাত নেই, তবে যেকোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় সরকার আন্তরিক রয়েছে।’ 

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বিশেষজ্ঞদের সুন্দরবন ক্ষতির আশঙ্কার প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘বনের কোনো ক্ষতি হবে না, এজন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া সুন্দরবনের অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ বনের অভ্যন্তরে প্রায় শতাধিক মিষ্টি পানির পুকুর সংস্কারের কাজ চলছে, যাতে লবণ পানি না ঢোকে। গত চার থেকে পাঁচদিন ধরে ঝড়, জলোচ্ছ্বাসসহ প্রবল জোয়ারের পানিতে সুন্দরবন তলিয়ে যায়। এছাড়া চিংড়ি ঘেরের ব্যাপক ক্ষতিসহ ৪০৪ হেক্টর জমিও টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে।’

ইত্তেফাক/এইচএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন